শিরোনাম :
যশোর জেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত মিয়ানমারের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের পাল্টা আক্রমণ সেই ঘাতক বাসের নিবন্ধন বাতিল যশোরে তালা প্রতীকের লিফলেট বিতরণ বাংলাদেশ-ভারত ফাইনালে ওঠার লড়াই আগামীকাল মণিরামপুরে হত্যা মামলায় যুবলীগ নেতা আটক দেশীয় সফটওয়্যার ব্যবহারের আহ্বান সরকারি প্রতিষ্ঠানে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে আবারো স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানী করার অভিযোগ যশোরের চার ইউনিয়নে তালা-ফুটবলের নির্বাচনী কার্যালয় উদ্বোধন সিভিল সার্জন এর কার্যালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বাংলাকে বিকৃত করছে গুগল ও ফেসবুক ওরশ মাহফিলে যাওয়ার সময় কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ যশোর জেস টাওয়ারে আগুন ঢাকার কোনো রুটে চলবে না সু-প্রভাত বাস! আন্দোলনের মুখে বাগেরহাটের সেই শিক্ষককে বরখাস্ত ট্রাক চাপায় প্রাণ হারালেন সেনা কর্মকর্তার স্ত্রী-ছেলে গোল্ডেন বুটের লড়াইয়ে মেসির একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী এমবাপে কিশোর খুনের ১২ বছর পর ৩ আসামির যাবজ্জীবন গাইবান্ধায় প্রায় ৫ শতাংশ ভোট বাতিল যশোরে ড্রাইভিং পরীক্ষায় উত্তীর্ণের শর্ত ফাইল প্রতি দুই হাজার চৌগাছায় নির্বাচনী সহিংসতায় ৩ আ.লীগ নেতাকর্মী গ্রেপ্তার আগামীকাল ক্লাস বর্জন ও সড়ক অবরোধে শিক্ষার্থীদের আহ্বান জবিতে ১০৩ পদে আবেদনের বাকি ২ দিন রংপুরের স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মহাসড়ক অবরোধ ৫ ইটভাটাকে ১৮ লাখ টাকা জরিমানা : ভেঙে দেয়া হলো ৩ টি

১ ফেব্রুয়ারি প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘সহকারী শিক্ষক

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘সহকারী শিক্ষক’ নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা আগামী ১ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে পারে। এ বিষয়ে সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এছাড়া পরবর্তী ২ মাসের মধ্যে মৌখিক পরীক্ষার শেষ করা হবে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

এবার প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ২৪ লাখের বেশি চাকরিপ্রত্যশী আবেদন করেছেন। সারাদেশে ১২ হাজার আসনের বিপরীতে তারা এমসিকিউ পদ্ধতির লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেবেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. এ এফ এম মনজুর কাদির জানান, গত বছরের ডিসেম্বর মাসে নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হওয়ায় কথা থাকলেও নানা কারণে তা পিছিয়ে যায়। সময় বিলম্ব হলেও পরীক্ষার আয়োজনের সকল প্রস্তুতি চূড়ান্ত পর্যায়ে। ১ ফেব্রুয়ারিতে লিখিত পরীক্ষা নেয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে প্রস্তুতি শেষ করা হয়েছে। এই মন্ত্রণালয়ে নতুন মন্ত্রী আসছেন। নতুন মন্ত্রী অনুমোদন দিলে ফেব্রুয়ারিতে নিয়োগ লিখিত পরীক্ষা আয়োজন করতে কোনো বাঁধা থাকবে না। পরবর্তী দুই মাসের মধ্যে মৌখিক পরীক্ষা শেষ করার চিন্তা-ভাবনা রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আগামী সপ্তাহে মন্ত্রণালয়ে নিয়োগ সংক্রান্ত সভা বসার কথা রয়েছে। সেখানে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। লিখিত পরীক্ষার পর নতুন করে আরও ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রম শুরু করা হবে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই) সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে রেকর্ড সংখ্যক প্রার্থী আবেদন করেছেন। গত বছরের ১ আগস্ট থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত অনলাইনে ২৪ লাখের বেশি আবেদন জমা পড়েছে।

এর আগে নিয়োগে প্রায় ১২ লাখ প্রার্থী আবেদন করেছিলেন। এই হিসাবে আবেদনকৃত প্রার্থীর সংখ্যা এবার দ্বিগুণ। গত নিয়োগে সারাদেশে পরীক্ষা কেন্দ্রের সংখ্যা ছিল ৩ হাজার ৬৬২। এবার দ্বিগুণ প্রার্থী হওয়ায় কেন্দ্রের সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে। পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে নেয়ার জন্য মন্ত্রণালয় ২০ সেটের বেশি প্রশ্ন তৈরি করা হতে পারে।

নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করা হবে ডিজিটাল পদ্ধতিতে। পরীক্ষার সময়সূচি, ওএমআর ফরম ডিজাইন ও মূল্যায়ন, ফলাফল প্রকাশ কার্যক্রম কোন পদ্ধতিতে করা হবে তা নিয়ে বুয়েটের সঙ্গে বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এবারও আগের মতই লিখিত ও মৌখিক দুই স্তরেই পরীক্ষা নেয়া হবে। আগের নিয়ম অনুযায়ী এমসিকিউ পদ্ধতির লিখিত পরীক্ষা ৮০ নম্বর ও ভাইভায় ২০ নম্বর থাকবে।

পুরনো নিয়োগ বিধিমালা অনুসরণ করে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। তার আলোকে নারী আবেদনকারীদের ৬০ শতাংশ কোটায় এইচএসসি বা সমমান পাস এবং পুরুষের জন্য ৪০ শতাংশ কোটায় স্নাতক বা সমমান পাস চাওয়া হয়।

লিখিত পরীক্ষায় আসন প্রতি তিনজনকে (একজন পুরুষ ও দুইজন নারী) নির্বাচন করা হবে। মৌখিক পরীক্ষার পর চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

প্রার্থীরা dpe.teletalk.com.bd ওয়েবসাইট থেকে প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে পারবেন। এছাড়া ওএমআর শিট পূরণের নির্দেশাবলী এবং পরীক্ষা সংক্রান্ত অন্যান্য তথ্য ওয়েবসাইটে (www.dpe.gov.bd) পাওয়া যাবে।

স্বাআলো/ডিএম