শিরোনাম :
রাঙ্গামাটিতে আ’লীগ সভাপতিকে কুপিয়ে হত্যা সু-প্রভাত বাসের চাপায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী নিহত গাইবান্ধার ৫ উপজেলায় ৩ আ’লীগের ২ জন বিদ্রোহী প্রার্থী জয়ী ঠাকুরগাঁওয়ে ৫ উপজেলায় বিজয়ী হলেন যারা দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক নিহত ১৯ মার্চ দিনিটি কেমন যাবে হাসপাতালে নেয়ার পথে আরো একজনের মৃত্যু ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মোটরসাইকেল চালক নিহত রংপুরে চেয়ারম্যান পদে পাঁচটিতে আ.লীগ, একটিতে জাপা প্রার্থী জয়ী মুল্যতালিকা না থাকায় চুয়াডাঙ্গায় ৪ দোকানে জরিমানা যশোরে দুই তরুণী গণধর্ষণের ঘটনায় ৬ জন রিমান্ডে তারাগঞ্জে সেই লিটন জয়ী যশোরে পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা রাঙ্গামাটিতে ৬ ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা ভোট গ্রহণ শেষে রংপুরে চলছে গণনা ডার্ক মোডে চলবে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার ১২ টাকার ইনজেকশন হাজার টাকায় বিক্রি নির্যাতিত বাঙালিদের স্বাধীনতার আকাঙ্খা সৃষ্টি করেছিলেন বঙ্গবন্ধু : শেখ হাসিনা পাকিস্তানি সেনার গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত রংপুরে নৌকার প্রার্থী মিলন আটক সাতক্ষীরায় ইকোনোমিক জোন প্রতিষ্ঠা করা হবে : সালমান এফ রহমান বিশিষ্ট লেখক মহসিন শস্ত্রপাণি স্মরণে যশোরে শোকসভা অনুষ্ঠিত নেদারল্যান্ডসের ট্রামে বন্দুকধারীর হামলা এবার ভিলেনের চরিত্রে মিরাক্কেলের ইশতিয়াক মোবারকগঞ্জ চিনিকলে ৩০ কোটি টাকার চিনি অবিক্রি

ভোটে জেতা ড. কামালদের লক্ষ্য, জনগণের স্বার্থ কী?

চলমান সংলাপের

মিজানুর রহমান :: আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে চলমান সংলাপের আজ সপ্তম দিন। ১ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া সংলাপে ইতিমধ্যে ৪৫ দল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সংলাপে অংশ নিয়েছেন। আজ শেষ দিনে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন ঐক্যফ্রন্টের সাথে দ্বিতীয় দফা সংলাপ হতে যাচ্ছে। আর আগামীকাল সংলাপের ফলাফল নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

কয়েকটি জোটে ভাগ হয়ে আগামী নির্বাচন সুষ্টু ও গ্রহণযোগ্য করতে এই সংলাপ চলছে। এর মধ্যে রয়েছে আওয়াম লীগের নেতৃত্বে ১৪ দল, ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ঐক্যফ্রন্ট, বি চৌধুরীর নেতৃত্বে যুক্তফ্রন্ট। এছাড়া সংলাপারে অংশ নিয়ে গণতান্ত্রিক বাম জোটসহ ইসলামী জোটরে নেতারাও।

তবে একমাত্র ঐক্যফ্রন্ট বাদে সব দল নির্বাচন সুষ্টু করতে নানা দাবি তুলেছেন। ব্যতিক্রম ঐক্যফ্রন্টের দাবি ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি’। এর সাথে নিরপেক্ষ নির্বাচনের কী সম্পর্ক তা আমার বোধ্যগম্য নয়।

গত কয়েক বছর ধরে দেশের রাজনীতিতে বিশেষ করে বিএনপি দলটি অনেক বেশি ব্যক্তিগত বিষয় রাজনীতি হিসেবে চালিয়ে নিতে চেয়েছে। যার খেসারত হিসেবে দলটির জনপ্রিয়তা ও কর্মীদের রাজনীতির প্রতি আগ্রহ বেশ কমেছে। তারা খালেদা জিয়ার বাড়ি, তার নামে মামলা, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ উঠলে তা নিয়েই রাজনীতি শুরু করে। এমনকি তাদের সাজা হয়ে গেলেও তাদের রাজনীতির গতি পরিবর্তন হয়নি। এখনো দণ্ডিতদের মুক্তির জন্য আন্দোলন করছেন, দলীয়ভাবে কর্মসূচি দিচ্ছেন। কিন্তু এদেশের সধারণ মানুষের সংকট, সম্ভাবনা নিয়ে কোন কথা তাদের বলতে শোনা যায়নি। সম্প্রতি আত্মপ্রকাশ করা ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ঐক্যফ্রন্টকেউ একই দোষে দোষি হতে দেখছি। শুধু ভোট আর ভোটে জেতা ছাড়া তাদের আর কোন কর্মসূচি নেই।

তাহলে কেন মানুষ এদের সমর্থন করবেন, তার তো কোন কারণ খুঁজে পাচ্ছি না।

 

লেখক : মিজানুর রহমান, শিক্ষার্থী, বরিশাল।

(মতামতের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ি নয়)