আজ সোমবার ২১ জানুয়ারি, ২০১৯ ইং ৮ মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ শীতকাল ১৪ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম :
বিপিএলসহ আজকের খেলা গোপালগঞ্জের অপরিকল্পিত স্লুইসগেট কৃষকের গলার কাটা ইয়াবাসহ তিন মাদক ব্যবসায়ী আটক মাগুরায় ট্রাক চাপায় ১ কলেজ ছাত্র নিহত বন্দুকযুদ্ধে টেকনাফে মাদকবিক্রেতা নিহত আজ পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ নাজমুল হুদার জামিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ওআইসি মহাসচিবের অভিনন্দন প্রতারণার অভিযোগে সাবেক ফুটবলার কায়সার হামিদ গ্রেফতার ভাসুরকে ফাঁসাতে নিজের এক মাসের শিশুকে হত্যা!  ‘বই মানুষের বিবেক শক্তিকে জাগ্রত করে’ চাঁদের মালিকানা  নিয়ে  দ্বন্ধ জনগণের আস্থা ও বিশ্বাসের মর্যাদা রাখতে হবে-প্রধানমন্ত্রী নৌবাহিনীর প্রধান আওরঙ্গজেব মেডিকেল কলেজের ছাদ ধ্বসে হতাহতের সহায়তা কাল নতুন সরকারের প্রথম মন্ত্রিসভা বৈঠক ডাকসু নির্বাচন : অছাত্রদের হল ছাড়ার নির্দেশ অটো রিক্সা খাদে: পুলিশকে গণপিটুনী নাগরিক অধিকার আন্দোলন’র সভা ভারতীয় দুই কবি যশোরে বাগেরহাটে  গার্লস স্কুলে গোপনে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ চর তাম্বুলপুরে নড়বড়ে সাঁকোই ভরসা খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুইজন  গ্রেফতার পরিবেশ রক্ষায় চার প্রতিষ্ঠানকে পদক প্রদান

সুস্থ থাকার ছয়টি উপায়

সুস্থ থাকার গুরুত্ব যে কতখানি

ডেস্ক রিপোর্ট : সুস্থ থাকার গুরুত্ব যে কতখানি, তা কেবল অসুস্থ হলেই টের পাওয়া যায়। শরীর সুস্থ না থাকলে মনও ভালো থাকবে না। তাই শরীর ও মনের সুস্থতার জন্য সচেষ্ট হতে হবে আপনাকেই। আর তার জন্য বাড়তি কিছু করার দরকার নেই। প্রতিদিনের কাজগুলো একটু নিয়ম মেনে করলেই আপনার সুস্থ থাকা ঠেকায় কে!

১. সকালে ভোর ৬ টার পর পরই ঘুম থেকে উঠার অভ্যাস করা উচিত। এতে করে সকালের আলো দেহে ভিটামিন ডি তৈরি করে এবং বাতাস মস্তিষ্ক ও চোখকে সতেজ রাখে।

২. সকালে মুখ ধুয়েই এক থেকে দুই গ্লাস পানি পান করলে সহজে কোন পেটের রোগও হয় না। সকালে ঘুম থেকে উঠে ব্যায়াম, হাটাহাটি ও জগিং এর অভ্যাস করলে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। দেহ থাকে সুস্থ।

৩. সকালের খাবার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দেহের সুস্থতার জন্য। সকালে ২/৩ গ্লাস পানি পান করা উচিত। সুষম ও পুষ্টিকর খাবার খাওয়া উচিত। খালি পেটে চা/কফি পান করবেন না একেবারেই। ভারী নাস্তার শেষে চা/কফি পান করুন।

৪. খাবার খাওয়ার মাঝে কখনোই পানি পান করবেন না। খাবার খাওয়ার পূর্বে পানি পান করে নিন। এতে খাবার কম খাবেন যা দেহের ওজন কমাতে সাহায্য করবে। খাওয়ার মাঝে পানি পান করলে পরিপাকক্রিয়াতে বাঁধা আসে এবং হজমে সমস্যা হয়। খাবার খাওয়ার অন্তত ৩০ মিনিট পর পানি পান করবেন।

৫. দুপুরে খাবার সময় ১ টা এবং রাতে খাবার সময় ৮ টার আগে হওয়া উচিত। কারণ দুপুরে দেরি করে খেলে আপনার খাওয়া বেশি হবে ফলে আপনার ওজন বাড়বে এবং বেশি রাতে খাবার খেলে খাবার ঠিকমত হজম হওয়ার সময় পাওয়া যায় না যা আপনার রাতের ঘুমও নষ্ট করে দেবে। রাতে খাওয়ার অন্তত এক ঘন্টা পরে ঘুমাতে যওয়া উচিত।

৬. কড়া রোদ থেকে এসেই পানি পান করা উচিৎ নয়। এতে আমাদের দেহ হুট করে নিজের অবস্থার সাথে মানিয়ে নিতে পারে না যার ফলে দেহের স্বাভাবিক কর্মক্ষমতায় প্রভাব পড়ে। অতিরিক্ত পরিশ্রম এবং কড়া রোদ থেকে এসে খানিকক্ষণ বিশ্রাম নিয়ে পানি পান করা ভালো।

স্বাআলো/আরবিএ

আজকের তারিখ

  • আজ সোমবার, ২১শে জানুয়ারি, ২০১৯ ইং
  • ৮ই মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ (শীতকাল)
  • ১৪ই জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী
  • এখন সময়, দুপুর ১২:১৪