বরিশাল বিভাগ জুড়ে মন্ত্রীত্বের আলোচনা

আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত এমপিরাআওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত এমপিরা

সৈয়দ মেহেদী হাসান, বরিশাল ব্যুরো : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর শপথ গ্রহণ করেছেন আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত এমপিরা। শপথের পরপরই দক্ষিণাঞ্চল জুড়ে শুরু হয়েছে মন্ত্রিত্বের আলোচনা।

দশম জাতীয় সংসদে বরিশাল বিভাগের ছয় জেলা থেকে পাঁচজন মন্ত্রী মনোনীত হলেও এবার আরও কয়েকটি আসন থেকে মন্ত্রীত্বের দাবি উঠেছে।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মন্ত্রী ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মন্ত্রীত্বের প্রত্যাশায় করেন এমন ৯ জনের নাম জানা গেছে। যাদের মধ্যে দু’জনকে পূর্ণাঙ্গ মন্ত্রীত্ব প্রদানের দাবিও উঠেছে। এদিকে মন্ত্রীত্ব প্রদানের দাবিতে মানববন্ধনও হয়েছে কোথাও কোথাও। সবমিলিয়ে দক্ষিণাঞ্চলের নেতাকর্মীরা সরব মন্ত্রীত্বের আলোচনায়।

দশম জাতীয় সংসদে বাণিজ্য মন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন ভোলা-১ আসনের সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ, ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব ছিলেন বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রীর দায়িত্বে। ঝালকাঠি-২ আসনের সংসদ সদস্য আমির হোসেন আমু ছিলেন শিল্পমন্ত্রীর দায়িত্বে। পিরোজপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ার হোসেন মঞ্জু ছিলেন পানি সম্পদ মন্ত্রী এবং সর্বশেষ মন্ত্রীত্বের মর্যাদা পান বরিশাল-১ আসনের সংসদ সদস্য আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ। তারা মন্ত্রণালয় পরিচালনায় সফল হয়েছেন। এই পাঁচজনের সকলকে আবারও মন্ত্রীত্ব প্রদানসহ নবনির্বাচিত চারজনকে মন্ত্রী মনোনীত করার দাবি জানাচ্ছেন সংশ্লিষ্ট আসনের নেতা-কর্মী ও ভোটাররা। যদিও সাংসদরা এ বিষয়ে কোন কথা বলেননি।

আরো পড়ুন>>> বরিশালে বই উৎসবে মাতোয়ারা ৩৩ লাখ শিক্ষার্থী

বর্তমানে নবনির্বাচিত যে চারজন সংসদ সদস্যকে মন্ত্রীত্ব প্রদানের দাবি উঠেছে তারা হলেন, পিরোজপুর-৩ আসনের সাংসদ ডা: রুস্তম আলী ফরাজী, পিরোজপুর-১ আসনের সাংসদ শম রেজাউল করিম, বরিশাল-৩ আসনের সাংসদ গোলাম কিবরিয়া টিপু ও পটুয়াখালী-৪ আসনের সাংসদ মহিব্বুর রহমান মহিব।

৪ জানুয়ারি পটুয়াখালী-৪ আসনে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য মহিব্বুর রহমান মহিবকে মন্ত্রী করার দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেছে কলাপাড়া রিপোটার্স ইউনিটি, মহিপুর শিল্পগোষ্ঠীসহ সামাজিক, রাজনৈতিক কর্মী, স্কুল কলেজ ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ।

পিরোজপুর-৩ আসনের বারবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য রুস্তম আলী ফরাজীকে তার জনপ্রিয়তাকে পূঁজি করে মন্ত্রী করার দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। নির্বাচনের আগে জাতীয় পার্টি মঠবাড়িয়া শহীদ মোস্তফা খেলার মাঠে একটি জনসভার আয়োজন করেছিল। ওই জনসভায় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদসহ জাতীয় পার্টির ডজনখানেক কেন্দ্রীয় নেতা উপস্থিত ছিলেন। ওই সমাবেশে এলকাবাসির দাবির পরিপ্রেক্ষিতে এরশাদ ঘোষণা দেন, আপনারা যদি এবার ডা. ফরাজিকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করতে পারেন তাহলে তিনি মন্ত্রীত্ব পাবেন। যেহেতু টানা চারবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন রুস্তম আলী ফরাজী। সেকারণে তার মন্ত্রীত্ব প্রাপ্তির আলোচনা জোরদার হচ্ছে।

পিরোজপুর-১ আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য শম রেজাউল করিমকে মন্ত্রী করার দাবি তুলেছে ওই আসনের নেতাকর্মী, ভোটার ও বাসিন্দারা। তার স্বচ্ছ রাজনৈতিক ক্যারিয়ার, দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার আস্থাভাজন ব্যাক্তি হওয়ায় শম রেজাউল করিমকে মন্ত্রণালয় প্রদানের দাবি জানান।

আর বরিশাল-৩ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপুকেও মন্ত্রীত্ব প্রদানের দাবি করেছেন এলাকাবাসী। এছাড়াও আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ ও আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকবকে পূর্ণাঙ্গ মন্ত্রীত্ব প্রদানসহ আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, আনোয়ার হোসেন মঞ্জুতো মন্ত্রীর তালিকায় রয়েছেনই।

স্বাআলো/আরবিএ