ঠাকুরগাঁওয়ে ব্রয়লার খামার বন্ধ হয়ে যাচ্ছে

ব্রয়লার খামার গড়ে তুললেও তা নানা কারণে বন্ধ

জেলা প্রতিনিধি, ঠাকুরগাঁও : কর্মসংস্থানের উদ্দেশ্যে নিজ উদ্যোগে ঠাকুরগাঁওয়ের যুবকরা ব্রয়লার খামার গড়ে তুললেও তা নানা কারণে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এমন খামারের সংখ্যা অন্তত ৫০টি।

এমনি এক ব্রয়লার খামারী হরিপুর উপজেলার টেংরিয়া ঝারবাড়ি গ্রামের আব্দুল হাকিম। কয়েক বছর ধরে এই ব্যবসা পরিচালনা করছেন তিনি। তার ভাষ্যমতে, এই এলাকায় কয়েকটি ব্রয়লার মুরগির খামার গড়ে উঠেছে। কিন্তু কেউ টিকিয়ে রাখতে পারেনি। বর্তমানে ব্রয়লার বাচ্চা, খাদ্য ও ওষুধের দাম বেড়ে যাওয়ায় এবং খামারে উৎপাদিত ব্রয়লার দাম কম হওয়ায় লোকসান হচ্ছে।

তিনি বলেন, বর্তমানে ব্যবসার পরিস্থিতি খুবই খারাপ। প্রতি চালানেই লোকসান গুনতে হচ্ছে। আজ থেকে ৫-৭ বছর আগে ব্রয়লার মুরগির খাবার প্রতি ৫০ কেজি ওজনের বস্তার দাম ছিল ১৫-১৮ শ’ টাকা। এখন তার দাম বেড়ে হয়েছে ২১ শ’ ৫০ টাকা। ব্রয়লার বাচ্চার দাম ছিল প্রতি পিস ১২-১৫ টাকা বর্তমানে ৩০ টাকা। বেড়েছে ওষুধ ও শ্রমিকের দামও। কিন্তু উৎপাদিত ব্রয়লার মুরগির দাম বাড়েনি। আগে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে ২ শ’থেকে আড়াইশ’ টাকা, এখন দামন ১ শ’ থেকে ১৫০ টাকা। গত চালানে তাকে এক লাখ দশ হাজার টাকা লোকশান গুনতে হয়েছে বলে জানান তিনি।

আরো পড়ুন>>> ঠাকুরগাঁওয়ে বাস্তুহারা লীগের ২ নেতাকে মারধর

তিনি বলেন, কয়েক বছর ধরে এই ব্যবসা করে আসছি তাই ছেড়ে দিতে ইচ্ছে করে না। তারপরও এই আশায় বুক বেধে ব্যবসাটা ধরে রেখেছি।

দুই বছরে তিন লাখ টাকা লোকসানের কারণে খামার বন্ধ করে দিয়েছেন উপজেলার ভাতুরিয়ার জয়নাল আবেদিন। তার সাধের ব্রয়লার মুরগির খামার বর্তমানে খালি পড়ে আছে।

একই এলাকার মাসুদ রানা বলেন, তিন বছরে প্রায় দেড় লাখ খেয়ে ব্যবসা বন্ধ করেছি গত বছর।

উৎপাদন কমিয়ে ব্রয়লার মুরগির খামার ধরে রেখেছেন উপজেলা চৌরঙ্গী এলাকার কামরুলজ্জামান, হলদিবাড়ির কারিম উদ্দীন।

উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে নিবন্ধিত ব্রয়লার মুরগির খামার আছে ৫টি আর অনিবদ্ধিত খামার আছে ৪৫টি।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. রেজুয়ানুল হক  ব্রয়লার মুরগির খামার বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, দাম ওঠা-নামা, উকরণের দাম বৃদ্ধি প্রভৃতি যে সব সমস্যার কারণে খামার বন্ধ হচ্ছে তাতে আমাদেও করার কিছু নেই।

স্বাআলো/আরবিএ