যশোরে ৯ লাখ টন বোরো উৎপাদনের সম্ভাবনা

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর : ৯ লাখ মেট্রিক টন বোরো ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্র নিয়ে যশোরের কৃষকরা চাষ শুরু করেছেন। ইতোমধ্যে কৃষকরা ধান রোপণ কাজে ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন।

যশোর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, এবার জেলার সদর, ঝিকরগাছা, চৌগাছা, শার্শা, মণিরামপুর, কেশবপুর, অভয়নগর ও বাঘারপাড়া  উপজেলায় প্রায় দেড় লাখ হেক্টরে (১১ লাখ ২৫ হাজার বিঘা) বোরো চাষের ল্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। কৃষকরা জানিয়েছেন, হেক্টর প্রতি ৬ মেট্রিক টন হিসেবে  আবাদকৃত জমিতে ৯ লাখ টন ধান উৎপাদিত হবে। তবে সমস্যা দেখা দিয়েছে বোরোর বীজতলা নিয়ে। বীজতলা ব্যাপক আকারে কোল্ড ইনজুরিতে আক্রান্ত হয়েছে। এ কারণে ধানের চারা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। কৃষি বিভাগের পরামর্শ নিয়ে কৃষকরা এ সমস্যা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করছেন। কৃষি বিভাগ জানিয়েছে, শৈত্যপ্রবাহ ও ঘন কুয়াশার কারণে প্রতি বছরই বোরোর চারা এ সমস্যা দেখা দেয়।

ঝিকরগাছা উপজেলার মল্লিকপুর গ্রামের অভিজ্ঞ কৃষক আবদুল খালেক মেম্বর বলেন, বীজতলায় আগেভাগে বীজ ফেললে তীব্র শীত আসার আগেই চারা রোপণের উপযোগী হয়। তখন আর চারার ক্ষতি হবার সুযোগ থাকে না।

তিনি প্রতিবারই এ নিয়মেই বোরোর আবাদ করেন। এতে কোল্ড ইনজুরির ক্ষতি থেকে বোরা চারাকে রক্ষা করতে পারেন। এবারও তিনি ইতোমধ্যে ধান রোপণের কাজ শেষ করেছেন।

সদর উপজেলার নারাঙ্গালী গ্রামের কৃষক নজরুল ইসলাম জানান, বোরো চাষ অনেকটাই লাভজনক। এক বিঘা জমিতে ন্যুনতম ২০ মণ ধান উৎপাদন হয়। অন্য মৌসুমে এত ফলন হয় না। অনেক ক্ষেত্রে ফলন বেশিও হয়।