নিয়ম-নীতির পরোয়া না করেই শিক্ষাবোর্ডের গাছ কর্তন

যশোর শিক্ষাবোর্ডে সরকারি গাছ কাটাযশোর শিক্ষাবোর্ডে সরকারি গাছ কাটা

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর: টেন্ডার ও বোর্ড মিটিং ছাড়াই নিয়ম-নীতির পরোয়া না করে যশোর শিক্ষাবোর্ডে সরকারি গাছ কাটা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েকদিন আগে যশোর শিক্ষাবোর্ডের রেস্ট হাউসের সামনে থেকে চারটি বড় মেহগিনি ও কয়েকটি নারিকেল গাছ কাটা হয়েছে। কাটা গাছগুলো এখনো সেই স্থানে রাখা হয়েছে।

কিন্তু গাছা কাটার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে শিক্ষাবোর্ড সরকারি আইনি প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে বোর্ড মিটিংয়ের পর রেজুলেশন ও বনবিভাগ দ্বারা মূল্য নির্ধারণের মত কোন আইন মানেনি। শিক্ষাবোর্ড একটি স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান। তাই সরকারি আইন অনুযায়ী তারা বোর্ড মিটিং করে বনবিভাগ দ্বারা গাছের মূল্য নির্ধারণের পর গাছ কাটতে পারবে। তবে তারা এ আইনের কোনটায় মানেননি।

এ বিষয়ে যশোরের অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেড শফিকুল ইসলাম বলেন, শিক্ষাবোর্ড স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান। গাছ কাটতে হলে এ প্রতিষ্ঠানকে বোর্ড মিটিংয়ে পর বনবিভাগ দ্বারা গাছের মূল্য নির্ধারণ করতে হবে। তারপর গাছ কাটা যাবে।

আরো পড়ুন>>> যশোরে নারীঘটিত ঘটনাকে কেন্দ্র করে যুবক খুন

শিক্ষাবোর্ডের সচিব প্রফেসর তবিবর রহমান বলেন, কয়টি গাছ কাটা হয়েছে আপনি জানানে। শিক্ষাবোর্ডে হুট করে কোন কিছুই করা হয় না। সিদ্ধান্ত নিয়েই কাজ করা হয়।

বোর্ড চেয়ারম্যান প্রফেসর মোহাম্মদ আব্দুল আলীম বলেন, শিক্ষাবোর্ডের প্রয়োজনে গাছ কাটা হয়েছে। ওখানে গ্যারেজ করা হবে। তাই গাছা কাটা হয়েছে। মিটিংয়ে আছি পরে কথা হবে।

স্বাআলো/আরবিএ