দুইশ অতিক্রম করলো পদ্মায় পাইল ড্রাইভ

পদ্মাসেতুর

জেলা প্রতিনিধি, মুন্সিগঞ্জ : পদ্মাসেতুর উপর দিয়ে পদ্মা পাড়ি দেওয়ার স্বপ্ন বাস্তবে রূপ নেওয়ার পথে চলমান। দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে প্রকল্পের কাজ। নদীতে যে ২৬২ টি পাইল ড্রাইভ বসবে তার মধ্যে ২০৯টি পাইল ড্রাইভ সম্পন্ন হয়েছে। বাকি আছে ৫৩টি পাইল ড্রাইভ। সেতুর ৪২ টি পিলারের মধ্যে ২১ টি পিলারের কাজ সম্পন্ন। মোট ২৯৪ টি পাইলের মধ্যে ২৪১ টি পাইল ড্রাইভ সম্পন্ন।

আটটি স্প্যান (সুপার স্ট্রাকচার) বসিয়ে পুরো পদ্মা সেতু এখন ১২০০ মিটার দৃশ্যমান। তবে গেল আটদিন ধরে তিনটি হ্যামার বন্ধ থাকায় সাময়িক বন্ধ আছে পাইল ড্রাইভিংয়ের কাজ।

বৃহস্পতিবার পদ্মাসেতুর প্রকৌশলী সূত্রে জানা যায়, সেতুর ৬, ৭, ৮, ১০ নম্বর পিলারের পাইল ড্রাইভের অর্ধেক কাজ বাকি। তবে ১১, ২৬, ২৭, ৩০ নম্বর পিলারের পাইল ড্রাইভের কাজ এখনো শুরু হয়নি। চলতি মাসের মধ্যে ২০, ২২, ২৩ নম্বর পিলারের কাজ সম্পন্ন হওয়ার কথা আছে।

এছাড়া এ মাসেই ৩৫ ও ৩৪ নম্বর পিলারের ওপর নবম স্প্যানটি বসাতে প্রকৌশলীরা পরিকল্পনা করছেন। স্প্যান বসানোর জন্য প্রস্তুত আছে ৩৩ নম্বর পিলারও। পেইন্টিং শেষে ৬ ডি স্প্যান মাওয়া কন্সট্রাকশন ইয়ার্ডে প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে। সেতুর ৩৪ ও ৩৫ নম্বর পিলারের ওপর নবম স্প্যানটি বসানো হবে। সেতুর নকশা জটিলতার পিলারগুলোতে স্ক্রিন গ্রাউটিং পদ্ধতি অবলম্বন করে পাইল ড্রাইভিং করা হচ্ছে। এ পদ্ধতিতে ১৮ টি পাইল বসে গেছে। আটদিন ধরে তিনটি হ্যামার নষ্ট থাকায় বন্ধ আছে পাইলিং কাজ। ফলে পাইলিংয়ের কাজের গতিতে বিঘ্ন ঘটেছে।

আরো পড়ুন>>>জাপানে নারীদের চাকরির সুযোগ বিনা খরচে

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রকৌশলী বাংলানিউজকে বলেন, পদ্মাসেতুর ২১টি পিলারের কার সম্পন্ন। এগুলো হলো- ২, ৩, ৪, ৫, ১৩, ১৪, ১৫, ১৬, ১৭, ১৮, ২১, ৩৩, ৩৪, ৩৫, ৩৬, ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০, ৪১, ৪২। চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহের হিসাব অনুযায়ী জাজিরা প্রান্তে স্প্যানগুলোতে ১৯২টি রেলওয়ে স্ল্যাব বসেছে।

এছাড়া সেতুর ৬, ৭, ৮, ১০, ১১, ২৬, ২৭, ২৯, ৩০, ৩১, ৩২ নম্বর পিলার গুলোর পাইল ড্রাইভিংয়ের ক্ষেত্রে স্ক্রিন গ্রাউটিং পদ্ধতি ব্যবহৃত হচ্ছে। ৬ টি করে পাইল ড্রাইভ হবে ১৮ টি পিলারে এবং ৭ টি করে পাইল ড্রাইভ হবে ২২ টি পিলারে। মাওয়া কন্সট্রাকশন ইয়ার্ডে ১৩ টি স্প্যানের মধ্যে ৯ টি স্প্যান ফিটিংয়ের কাজ চলমান আছে।

আরো পড়ুন >>>সহজেই বানিয়ে ফেলুন ফিস কাবাব

মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) ও নদীশাসনের কাজ করছে চীনেরই আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ সেতুতে ৪২ টি পিলারের ওপর বসবে ৪১ টি স্প্যান। স্প্যান বসানো হয়েছে ৮ টি, বাকি আছে ৩৩ টি।

পদ্মা বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো। জাজিরা প্রান্তে সেতুর ৩৫, ৩৬, ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০, ৪১, ৪২ পিলারে সাতটি স্প্যান ও মাওয়া প্রান্তে ৫ ও ৬ নম্বর পিলারে একটি অস্থায়ী স্প্যান বসানো হয়েছে।

স্বাআলো/এইসএম