জুড়ীতে নির্বাচনকে ঘিরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১০

নির্বাচনকে ঘিরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১০

জেলা প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলা নির্বাচনের ভাইস চেয়ারম্যান পদের ফলাফলকে কেন্দ্র করে বিজয়ী ও পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে শাকিল আহমেদ (২০) নামে এক যুবক গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ১০জন আহত হয়েছেন।

সোমবার দিনগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর উপজেলা পরিষদের সামনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জুয়েল আহমদ ও রিংকু দাশের সমর্থকদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

গুলিবিদ্ধ শাকিল উপজেলার জাঙ্গীরাই এলাকার রাজা মিয়ার ছেলে। তবে তিনি কোনো পক্ষের সমর্থক তা জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) ঘোষিত ফলাফলে রিংকু দাশ (টিউবওয়েল) প্রতীকে ১৫ হাজার ৪২৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী জুয়েলা আহমদ (বই) প্রতীকে ১৪ হাজার ৪৫৫ ভোট পান।

বিজয়ী প্রার্থীর ৯৭১ ভোটের এই ব্যবধান অপ্রত্যাশিত বলে জুয়েল উত্তেজিত হয়ে পড়েন। এতে উভয়পক্ষের সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন৷ একপর্যায়ে গোলাগুলির শব্দ পাওয়া যায়। পরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় শাকিলকে উদ্ধার করে কুলাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়।

আরো পড়ুন>>> রাঙ্গামাটিতে আ’লীগ সভাপতিকে কুপিয়ে হত্যা

কুলাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত চিকিৎসক সোহেল আহমদ বাংলানিউজকে,  আহত শাকিলের মাথায় তিনটি গুলি লেগেছে। তার অবস্থা আশংকাজনক। তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম সর্দার বাংলানিউজকে বলেন, ফলাফল না মেনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জুয়েল আহমদ উপজেলা কন্ট্রোলরুমে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। বিজয়ীপক্ষ ও তার পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়ায়। সেখানে কে কাকে গুলি চালিয়েছেন আমরা তা জানতে পারিনি। গুলিবিদ্ধ আহত একজনকে আমরা হাসপাতালে ভর্তি করেছি। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

স্বাআলো/এএম