সাভারে চাকরির প্রলোভনে গণধর্ষণ, আটক ৫

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা : রাজধানীর সাভারে চাকরির প্রলোভনে এক নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগে পাঁচ জনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় সাভারের বিভিন্ন এলাকা থেকে অভিযুক্তদের আটক করা হয়েছে। ধর্ষণের ১৯ দিন পর থানায় মামলা নথিভুক্ত হলে তাদের আটকের উদ্যোগ নেয়া হয়।

গ্রেফতাররা হলেন- রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ ঘাট থানার ট্যাংগাপাড়া গ্রামের মিরাজ সরদার (৩২), কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট থানার পীর মাহমুদ গ্রামের মোক্তার হোসেন (২৯), গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ থানার শান্তিরাম গ্রামের মাহবুব হক (৪২), বরিশাল জেলার অগৈলঝড়া থানার পতিহার গ্রামের মতি গোমস্তা (৫৫) ও কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুর থানার খামারটগরপুর গ্রামের রাকিবুল ইসলাম (২৪)। তারা সাভারের কাতলাপুর ও আশপাশের এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করেন।

নির্যাতনের শিকার ওই নারীর বাড়ি নীলফামারীতে। তিনি সাভার পৌরসভার আনন্দপুর এলাকার ভাড়া বাসায় থেকে গৃহকর্মীর কাজ করতেন।

সাভার মডেল থানার ওসি এএফএম সায়েদ এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং আটকদের আজ মঙ্গলবার সকালে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আরো পড়ুন >>>আড়াই বছরের শিশুকে ধর্ষণ

মামলার বিবরণী থেকে জানা যায়, গত ১০ মার্চ রবিবার রাতে সাভারের কাতলাপুর এলাকার জেকে গার্মেন্টসে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ওই নারীকে নিকটস্থ রাজাবাড়ী এলাকার আবুল খায়েরের বাড়ির পঞ্চম তলায় ডেকে নেয় মিরাজ সরদার। পরে তাকে একটি কক্ষে আটকে মিরাজ সরদার, মোক্তার হোসেন, মাহবুব, মতিসহ চার জন পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এসময় আরও দুই জন দরজার বাইরে পাহাড়া দিতে থাকে। এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা বিভিন্ন সময় ধর্ষিতাকে গুম করার ভয়ভীতি প্রদর্শন করতে থাকে।

স্বাআলো/এইসএম