ইতিহাসে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড সৌম্যর

স্পোর্টস রিপোর্ট: বিকেএসপিতে জ্বলে ওঠেছেন সৌম্য সরকার। করে চলেছেন একের পর এক রেকর্ড। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ‘ডাবল সেঞ্চুরির’ বিরল রেকর্ড গড়লেন তিনি।

পুরো লিগে কোনো রান নেই। এমনকি বিশ্বকাপের দল ঘোষণার আগ মুহূর্তে নির্বাচকরা সৌম্য সরকারকে নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারছিলেন না, তার বাজে ফর্মের কারণেই। শেষ পর্যন্ত সেই সৌম্য শুধু রানেই ফিরলেন না। রীতিমত রেকর্ডই গড়ে ফেললেন। বাংলাদেশের ইতিহাসে ৫০ ওভারের ক্রিকেটে, এই প্রথম কোনো ডাবল সেঞ্চুরি করার কৃতিত্ব দেখালেন। তিনি সৌম্য সরকার।

বিকেএসপির সেই তিন নম্বর মাঠে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের ৩১৭ রানের বিশাল পাহাড় টপকাতে নেমে ৪৬তম ওভারের প্রথম বলে ইমতিয়াজহ হোসেন তান্নাকে এক্সট্রা কাভারের ওপর দিয়ে বাউন্ডারি মেরে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে লিস্ট ও ক্রিকেটে ডাবল সেঞ্চুরি পূরণ করেন সৌম্য সরকার। ১৪৯ বলে, ১৪টি বাউন্ডারি এবং ১৫টি ছক্কা মেরে ঐতিহাসিক এই মাইলফলকে পৌঁছান বাংলাদেশের এই ড্যাশিং ব্যাটসম্যান।

৪৮ ঘন্টা আগে এই বিকেএসপিতেই লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের বিপক্ষে শতরান পূরনের পর পরই (৭৯ বলে ১০৬ রানে) ফিরে গিয়েছিলেন সাজঘরে। তিন অংকে পা রাখা সৌম্য যখন সাজঘরে ফেরেন, তখন আবাহনী ইনিংসের বয়স মোটে ২৪.২ ওভার। তার মানে, তখনো খেলার বাকি ছিল ১৫৪ বল। পুরো লিগে রান নেই। রূপগঞ্জের বিপক্ষে ম্যাচের আগ পর্যন্ত প্রথম পর্ব আর সুপার লিগ মিলে ১১ ম্যাচে মোটে ১৯৭ রান তুলেছিলেন তিনি।

রীতিমত রান খরায় ভোগার পর শতরানের দেখা পান সৌম্য। এ যেন কঠিন মরুর মাঝে পাহাড়ী ঝরনার পানির কল কল শব্দের মত। অনেকদিন পর সেই শতরানের পর চোখে-মুখে ছিল স্বস্তির পরশ। তবে দিন শেষে কন্ঠে খানিক অতৃপ্তি-অনুশোচনা, ‘অনেকদিন পর রানে ফিরে এবং সেঞ্চুরি করে ভাল লাগছে। তবে শতরানের পর ইনিংসটি বড় হয়নি, শেষ করে আসতে পারিনি- তাই কিছুটা আফসোস থেকেই গেছে। এ রকম অবস্থায় আসলে ইনিংসটাকে বড় করা উচিৎ।’

সেদিনের সে অতৃপ্তি, আর আফসোস ও অনুশোচনা অঅজ কড়ায় গন্ডায় পুষিয়ে দিলেন সৌম্য সরকার। আজ বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে শেখ জামালের বিপক্ষে প্রিমিয়ার সুপার লিগের শেষ ও অতি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ছক্কা বৃষ্টিতে বাংলাদেশের লিস্ট ‘এ’ রেকর্ড গড়ার পাশাপাশি আরও এক অনন্য কীর্তি গড়লেন সৌম্য সরকার।

স্বাআলো/এসএ