স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

জেলা প্রতিনিধি, মাদারীপুর : মাদারীপুরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মোক্তার হোসেন নামে এক পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। অভিযুক্ত মোক্তার হোসেন মাদারীপুর থানার নায়েক হিসেবে কর্মরত।

আজ সোমবার সন্ধ্যায় পুলিশ সদর দফতরের এআইজি সোহেল রানা জানান, পুলিশ সদস্য কর্তৃক ধর্ষণের ঘটনা সম্পর্কে অবগত হওয়ার পরপরই মাদারীপুর সদর সার্কেল এর অ্যাডিশনাল এসপি বদরুল আলম মোল্লাকে প্রধান করে দুই সদস্যদের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রিপোর্ট প্রদান করতে বলা হয়েছে।

নির্যাতিতা স্কুলছাত্রীকে রবিবার রাতে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি নজরে আসার পর সুষ্ঠু তদন্তে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশ পুলিশ।

ধর্ষণের অভিযোগ ওঠার পর অভিযুক্ত নায়েক মোক্তারকে মাদারীপুর থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে নেয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গতকাল রবিবার নায়েক মোক্তারের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে। যদিও এ ব্যাপারে অভিযোগকারীদের পক্ষ থেকে এখনো কেউ মামলা করেনি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আরো পড়ুন >>>বখাটেদের আক্রান্ত অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা, মামলা দায়ের

ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত রবিবার রাতে শহরের টিভি ক্লিনিক সড়কে ঘরে ডেকে নেয় প্রতিবেশী মোক্তার হোসেন। পরে দরজা বন্ধ করে। স্থানীয়রা বিষয়টি বুঝতে পেরে বাইরে থেকে মোক্তারের ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয়। এতে ভীত হয়ে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মোক্তার ঘরের ভেন্টিলেটর দিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে বাইরে ফেলে দেয়। এতে ভুক্তভোগীর পায়ের হাড় ভেঙে গেছে। পরে স্থানীয়রা নির্যাতিত মেয়েটিকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

বিষয়টি অবগত হবার পর মাদারীপুরের পুলিশ সুপার বলেন, আমরা ঘটনাটি জেনেছি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্বাআলো/এইসএম