দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১০

জেলা প্রতিনিধি, বগুড়া: বগুড়া-৬ আসনের উপ-নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর কর্মী-সমর্থক এবং স্বতন্ত্র (আপেল প্রতীক) প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আহত হয়েছে অন্তত দশজন আহত হন।

আজ সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে বগুড়া সদরের শাখারিয়া ইউনিয়নের পাঁচবাড়িয়া গ্রামে এ সংঘর্ষ হয়।

ধানের শীষের পক্ষের শ্রমিকদল নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন, ছাত্রদল নেতা সিপাত আল আমিন, আরিফুর রহমান আরিফ এবং আপেল মার্কার কর্মী মাসুদ, সম্রাটকে গুরুতর আহত অবস্থায় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শাখারিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এখলাসের ভাই মালয়েশিয়া প্রবাসী যুবদলের সভাপতি মিনহাজ মণ্ডল স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন। তাই শাখারিয়া এলাকার বিএনপির নেতাকর্মীরা মিনহাজ মণ্ডলের পক্ষে কাজ করছেন।

দুপুরে নির্বাচনী প্রচারণার জন্য সদরের শাখারিয়া ইউনিয়নে বিএনপি প্রার্থী জিএম সিরাজ যান। এ সময় তার সাথে ছিলেন জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম বাদশা, আলী আজগর তালুকদার হেনা, মাফতুন আহম্মেদ খান রুবেল ছিলেনসহ আরো অনেক নেতাকর্মী। এসময় মিনহাজ অনুসারী স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীরা আপেল মার্কার পক্ষে প্রচার করছিলেন। ধানের শীষের নেতাকর্মীরা তাদের বাধা দিলে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। সংঘর্ষ চলাকালে স্বতন্ত্র প্রার্থী মিনহাজের পক্ষ নিয়ে তার অনুসারী বিএনপির কর্মী-সমর্থকরা ধানের শীষের প্রচার বহরে থাকা দুইটি মাইক্রোবাস এবং কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে। ধানের শীষের কর্মীরাও আপেল মার্কার নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর এবং তার পোস্টার আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়।

সদর থানার পুলিশ পরির্দশক (তদন্ত) রেজাউল করিম জানান, শাখারিয়া ইউনিয়ন বিএনপি অফিসকে আপেল মার্কার নির্বাচনী অফিস বানানো নিয়ে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। পরিস্থিতি শান্ত করা হয়েছে।

স্বাআলো/আরবিএ