শরণখোলায় ২০০ মিটার এলাকা আকষ্মিক নদীতে বিলীন

জেলা প্রতিনিধি, বাগেরহাট : বাগেরহাটের শরণখোলার গাবতলা এলাকায় দুটি দোকানঘরসহ ২০০ মিটার জায়গা নিয়ে উন্নয়ন বোর্ডের বেড়িবাধ বলেশ্বর নদীতে বিলীন হয়েছে।

আজ শনিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। বাধের ১০টি পয়েন্টে  ফাঁটল ও  ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। যে কোন সময় গ্রামাঞ্চল প্লাবিত হতে পারে ।

দক্ষিণ সাউথখালী ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য মোশারেফ হোসেন ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সকাল থেকে গাবতলা আশার আলো মসজিদ  এলাকার বেড়িবাঁধের প্রায় ২০০ মিটার এলাকা আকষ্মিকভাবে বলেশ্বর নদীতে দেবে যায়। এ সময় গাবতলা গ্রামের নূর মোহাম্মদ খানের একটি মুদি  দোকান ও  একটি মাছের ডিপোঘর নদীতে বিলীন হয়ে যায়। এতে ৪/৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দোকানী নূর মোহাম্মদ খান জানান। ১০টি পয়েন্টে বেরীবাধ ফাটল ও ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

আরো পড়ুন>> বাগেরহাটে ট্রাক চাপায় আহত শিশুর মৃত্যু

এলাকাবাসি ওই ঝুঁকিপূর্ণ বাঁধ যে কোন সময় ভেঙ্গে বলেশ্বর নদীর পানিতে  গ্রামাঞ্চল প্লাবিত হবার আতংকে রয়েছেন বলে গাবতলা গ্রামের  বাসিন্দা আরিফুল ইসলাম জানান। বর্তমানে ওই এলাকায়  বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৩৫/১ পোল্ডারে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে নতুন টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণের কাজ চলছে। নদী শাসন ছাড়া বেড়িবাঁধ নির্মাণের কাজ চলায় বেড়িবাঁধের স্থায়িত্ব নিয়ে মানুষের মাঝে প্রশ্ন উঠেছে। এ ব্যাপারে বাপাউবোর ‘সিইআইপি’ প্রকল্পের খুলনার নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুল আলম বলেন, সাউথখালী ইউনিয়নের গাবতলায় শনিবার বেড়িবাধ নদীতে বিলীন হবার খবর তিনি শুনেছেন এবং যাতে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করতে না পারে সে জন্য সোমবারের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্থ  এলাকায় রিংবাঁধ নির্মাণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

স্বাআলো/এম