লক্ষ্মীপুরে যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা

জেলা প্রতিনিধি, লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ভাগিনাকে মারধরের প্রতিবাদ করায় মামা ইউনিয়ন যুবলীগ কর্মী আনিছুর রহমান আজাদকে কুপিয়ে হত্যা করেছেন ‘মাদকসেবী’ মহসিন। এছাড়া ভাগিনা উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা রিয়াদ হোসেন টিটু ও প্রতিবেশী ইব্রাহিম হোসেনকেও কুপিয়ে আহত করা হয়।

সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার ভাটরার নান্দিয়ারা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আনিছুর রহমান আজাদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে ইব্রাহিম হোসেনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরো পড়ুন>> চলতি বছরে ধর্ষণের শিকার ৭৩১জন নারী ও শিশু

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছে, ‘তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে সন্ধ্যায় ভাটরার নান্দিয়ারা এলাকায় একটি দোকানের সামনে রিয়াজ হোসেন টিটুকে মারধর করে এলাকার চিহ্নিত মাদকসেবী মহসিন। মারধরের শিকার রিয়াদ হোসেন টিটু বিষয়টি তার মামা যুবলীগ কর্মী আনিছুর রহমান আজাদকে জানায়। খবর পেয়ে আনিছুর রহমান আজাদ তার ভাগিনাকে মারধরের কারণ মহসিনকে জিজ্ঞাসা করলে উভয়ের মাঝে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আনিছুর রহমান আজাদ, রিয়াদ হোসেন টিটু ও প্রতিবেশী ইব্রাহিম হোসেনকে আহত করে। আহত তিনজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে আনিছুর রহমান আজাদ মারা যায়। এ ঘটনার পর স্থানীয়দের সহযোগিতায় মাদকসেবী মহসিনকে আটক করে পুলিশ।

লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপার আসম মাহাতাব উদ্দিন জানান, পারিবারিক বিরোধের জের ধরে আনিছুর রহমান আজাদকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এছাড়া আরো দুইজন আহত হয়। অভিযুক্ত মহসিনকে আটক করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

স্বাআলো/এম

.

Author