জাতীয়করণের দাবিতে এসে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত ৬ শিক্ষক

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা : জাতীয়করণের দাবিতে টানা ২৮ দিন ধরে আমরণ অনশন কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। এরই মধ্যে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন  ২১৮ জন শিক্ষক। তাদের মধ্যে ডেঙ্গু জ্বর ৬ জন ও ডায়রিয়ায় ৭ জন আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

বরাবরের মতো শনিবারও রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করছেন তারা।

বাংলাদেশ বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি মামুনুর রশিদ খোকন জানান, আন্দোলনে দুই শতাধিক শিক্ষক অসুস্থ হয়েছেন।  অনেকেই সুস্থ হয়ে কর্মসূচিতে যোগদান করেছেন। তবে নতুন করে আরও ১৩ জন ডেঙ্গু জ্বর ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন।

তিনি বলেন, টানা ২৮ দিন ধরে অনাহারে রাজপথে বসে দিন-রাত কাটাচ্ছেন শিক্ষকরা। বৃষ্টিতে ভিজে, রোদে পুড়ে বসে থাকতে হচ্ছে তাদের। খাওয়া ঘুম সব হারাম হয়ে গেছে। রাস্তায় বসে ডেঙ্গু মশার কামড়ে আক্রান্ত হয়ে ছয়জন হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। আর সাতজন শিক্ষকের ডায়রিয়া হওয়ায় তাদের পার্শ্ববর্তী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আরো পড়ুন>> গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ

সংগঠনের সিনিয়র সহসভাপতি ফিরোজ উদ্দিন বলেন, এরআগেও জাতীয়করণের দাবিতে ২০১৮ জানুয়ারি মাসে প্রেসক্লাবের সামনে আন্দোলন নামি। টানা ১৮ দিন আন্দোলনের পর প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আমাদের দাবি আদায়ে আশ্বস্ত করলে আমরা বাড়ি ফিরে যাই। তারপর ২১ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে বাদপড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর হালনাগাদ তথ্য চাইলে দায়িত্বরত কর্মকর্তারা দায়সারা তথ্য দেন। কর্মকর্তাদের অবহেলায় আমাদের রাজপথে আমরণ আন্দোলনে নামতে বাধ্য হতে হয়েছে। জাতীয়করণ ছাড়া আমরা বাড়ি যাব না। প্রধানমন্ত্রী আমাদের অবস্থা বিবেচনা করে সুদৃষ্টি দিয়ে দাবি পূরণ করবেন বলে আশা করছি।

আন্দোলনকারী শিক্ষকরা বলেন, সারাদেশে ২৬ হাজারের বেশি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করা হলেও প্রায় চার হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়কে করা হয়নি। সকল শর্ত পূরণ করার পরও আমাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে জাতীয়করণ করা হয়নি। দীর্ঘ  ২৮ দিন ধরে আন্দোলন করলেও এখন পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়নি।

স্বাআলো/এম

.

Author