গাইবান্ধায় বনার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

জেলা প্রতিনিধি, গাইবান্ধা : গাইবান্ধার নদ নদীগুলোর পানি কমতে শুরু করেছে। ব্রহ্মপুত্র নদ ও ঘাঘট নদীর পানি বিপদসীমার অনেক উপর এবং করতোয়া নদীর পানি বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়। কিন্তু জেলার সাত উপজেলা বন্যার পানিতে নিচে। ফলে জেলার সার্বিক বন্যার পরিস্থিতি অপরিবর্তিত। রবিবার সারাদিন জেলার বিভিন্ন স্থানে বনার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত ছিল।

জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পীকার ফজলে রাব্বি মিয়া এমপি গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার হরিচন্ডি, সন্যাসীর চরসহ ব্রহ্মপুত্র ও যমুনা নদী বেষ্টিত বিভিন্ন চরাঞ্চলে পানিবন্দী লোকদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক আবদুল মতিন, ফুলছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল হালিম টলষ্টয়, সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, ফুলছড়ি আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি আব্দুল গফুর মন্ডল, যুগ্ম সম্পাদক শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

ডেপুটি স্পীকার ফজলে রাব্বি মিয়া বন্যার্ত ২ হাজার পরিবারের প্রত্যেককে চাল, চিড়া, গুড়, স্যালাইন, বিশুদ্ধ পানি বোতলসহ ১০ আইটেমের ত্রাণ প্যাকেজ বিতরণ করেন।

এদিকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহামুদ হাসান রিপনের ব্যক্তিগত অর্থায়নে সাঘাটা উপজেলার সাঘাটা ইউনিয়নে বন্যার্ত মানুষদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সাঘাটা-ফুলছড়ি উপজেলা শাখা এই কর্মসূচি আয়োজন করে।

আরো পড়ুন>> গাইবান্ধায় নদ-নদীর পানি বিপদসীমার ওপরে

সাঘাটার ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়। ফলে ওই ইউনিয়নের প্লাবিত গ্রামের ১ হাজার পরিবারের মাঝে ত্রাণ হিসেবে শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়। শুকনা খাবার ছিল চিড়া, গুড় ও খাবার স্যালাইন।

অপরদিকে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার মদনেরপাড়ায় বন্যার্ত অসহায় মানুষের মাঝে শামীম, রাজা, হাসান, শিহাব, লিটন ও রাহাত মিলে ছয় বন্ধুর উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। তাদের সকলের বাড়ি মদনেরপাড়ায়। এই ছয় বন্ধু নিজেদের উদ্যোগে এবং নিজেদের অর্থায়নে গাইবান্ধা-বালাসি রোডের মদনের পাড়ায় পানিবন্দি ছয়শ পরিবারের মাঝে চিড়া, চিনি ও খাবার স্যালাইন বিতরণ করেন।

এছাড়াও গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে হরিপুর, কাপাসিয়া ও শ্রীপুর ইউনিয়নের বন্যা দূর্গত ৮’শ পরিবারের মাঝে শুকনো খাবার, বিশুদ্ধ পানি, স্যালাইন ও মোমবাতি ত্রাণ হিসেবে বিতরণ করা হয়। উপজেলার আ.লীগের সাবেক সভাপতি মরহুম সৈয়দ আবুল হোসেন খাঁজার ছেলে ও উপজেলা আ.লীগের যুগ্ম আহবায়ক মশিউর রব্বানী আপেল ব্যক্তিগত অর্থায়নে বন্যার্তদের ত্রাণ বিতরণ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, রেজাউল করিম, ফুল মিয়া,আয়ুব আলী, আউয়াল কবির, লিবন, মতিয়ার রহমান।

স্বাআলো/এম

.

Author