কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে কমিশনারের ছেলে আটক

খুলনা ব্যুরো: খুলনার নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির এলএলবির এক ছাত্রীকে (২০) বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে খুলনার কর কমিশনার প্রশান্ত কুমার রায়ের ছেলে শিঞ্জন রায়কে (২৫) আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে সোনাডাঙ্গা মডেল থানা পুলিশ নগরীর বয়রা এলাকা থেকে তাকে আটক করে।

অভিযুক্ত শিঞ্জন রায়ও একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী ৬ মাসের অন্তস্বত্ত্বা বলে জানা গেছে। তিনি বাগেরহাট জেলার মোরেলগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা। নগরীর সোনাডাঙ্গা থানা সংলগ্ন এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে সে পড়াশুনা করতেন। দীর্ঘ এক বছরের সম্পর্ক থাকলেও শিঞ্জন তাকে বিয়ে না করে গত বুধবার অন্য মেয়েকে বিয়ে করায় ওই ছাত্রী তাকে ধর্ষণ ও প্রতারণার অভিযোগ আনেন।

এদিকে, শুক্রবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে ওই ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) নেয়া হয়েছে। তার পরিবারের সদস্যরাও এ বিষয়ে মামলা করতে সোনাডাঙ্গা থানায় অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে।

ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী বলেন, নগরীর সোনাডাঙ্গাস্থ নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির এলএলবিতে তিনি ও শিঞ্জন রায় একসঙ্গে পড়াশুনা করেন। এক বছর আগে শিঞ্জন রায় তাকে প্রেমের প্রস্তাব দেন। এরপর বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে তার ভাড়া বাসাসহ বিভিন্ন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করেন। এখন আমি ছয় মাসের অন্ত:স্বত্ত্বা।

এদিকে, কর কমিশনার প্রশান্ত কুমার রায়ের ছেলেকে অন্য মেয়ের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ার খবরে ওই ছাত্রী বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে নগরীর মুজগুন্নী আবাসিক এলাকার ১৬ নম্বর রোডে গিয়ে শিঞ্জন রায়ের দেখা পান। এসময় তার বিয়ের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করলে তিনি তাকে সেখান থেকে জোর করে ইজিবাইকে তুলে দিতে গেলে স্থানীয়দের নজরে আসে। এরপর বিষয়টি পুলিশের কাছে খবর গেলে তারা দু’জনকেই সোনাডাঙ্গা মডেল থানায় নিয়ে আসে।

অপরদিকে, ছেলেকে ছাড়াতে খুলনার কর কমিশনার প্রশান্ত কুমার রায় বৃহস্পতিবার রাত ৪টা পর্যন্ত সোনাডাঙ্গা থানায় অবস্থান করেন। কতিপয় সাংবাদিকসহ বিভিন্ন মহল থেকে প্রভাব বিস্তার করে তিনি ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহেরও চেষ্টা করেন। তবে, শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হয়ে শুক্রবার ভোর রাতে থানা থেকে একই গাড়িতে দু’জন সাংবাদিকসহ বেরিয়ে যান। এমনকি ওই সাংবাদিকরা সকালে খুমেক হাসপাতালের ওসিসির সামনে পুলিশ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতেই ওই ছাত্রীর স্বজনদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন।

সোনাডাঙ্গা মডেল থানার ওসি মমতাজুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বৃহস্পতিবার গভীর রাত পর্যন্ত উভয় পক্ষকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। এ কারণে ওই ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য খুমেক হাসপাতালের ওসিসিতে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

কর কমিশনার প্রশান্ত রায়ের ঘনিষ্ট সূত্র থেকে জানা গেছে, বুধবার তার ছেলে শিঞ্জন রায়ের আনুষ্ঠানিক বিয়ে সম্পন্ন হয়। আজ শুক্রবার তার বউ ভাতের কথা ছিল।

স্বাআলো/ডিএম