প্রতিপক্ষের আঘাতে বের হলো সোর্সের নাড়িভুড়ি

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর : যশোরে পুলিশের সোর্স বিটুলকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে পেটের নাড়িভুড়ি বের করে দিয়েছে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীরা। তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালের ভর্তি করা হয়ে অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকায় রেফার করা হয়েছে।

বাটুল যশোর শহরের খড়কী এলাকার আবুল হোসেনের বাড়ির ভাটাটিয়া আব্দুল কাদেরের ছেলে। সে পুলিশের সোর্সগিরির সাথে সাথে রিকসা চালায়।

বাটুলের মা শেফালি জানান, বাটুল যশোর কোতয়ালি মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার আমিরুজ্জামানের সোর্স হিসেবে কাজ করতো। আজ শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে খড়কী রেলক্রসিংয়ের পাশে দাঁড়িয়েছিল। এসময় একই এরাকার খালেকের ছেলে সন্ত্রাসী আল আমিনের নেতৃত্বে কয়েকজন সন্ত্রাসী বাটুলের পেটে, পীঠে ছুরিকাঘাত করে। এসময় তার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়। নাড়িভুড়ি বের হওয়ায় তারা এসময় বাটুলকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়।

হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ডাক্তার কল্লোল কুমার সাহা জানান, বাটুলের পেটেু দুটি, বাম বোগলের নিচে এবং পিঠের ডান পাশে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। তাকে অস্ত্রোপাচারের জন্য অপারেশন টেবিলে পাঠানো হয়েছে।

বাটুলের নাড়িভুড়ি বের হয়ে যাওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালের ডাক্তার সাইফুল রহমান তাকে ঢাকায় রেফার করে দিয়েছেন।

যশোর জেনারেল হাসপাতালে বাটুলের মা শেফালি বেগম আরো জানান, আহত হওয়ার পর বাটুল তাকে জানিয়েছেন, ‘তিনজন সন্ত্রাসী তাকে ছুরিকাঘাত করেছে। এর মধ্যে রমজান নামে একজন রয়েছে। বাকীদের সে চিনতে পারেনি।’

যশোর জেনারেল হাসপাতালে দায়িত্বরত কোতয়ালি মডেল থানার এসআই কামাল হোসেন জানান, কয়েক জায়গায় চুরিকাঘাতে আহত হয়ে বাটুল নামে এক ব্যক্তি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। কি কারণে এবং কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা জানা সম্ভব হয়নি।

যশোর কোতয়ালি মডেল থানার ওসি (তদন্ত) সমীর কুমার সরকার বাটুল নামে রিকসা চালক জখমের ঘটনা ঘটেছে তা তিনি জানেন না বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

স্বাআলো/আরবিএ