চাকরি পেতে পড়াশোনার পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়সমূহ!

ডেস্ক রিপোর্ট : বর্তমান বাংলাদেশে শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা কিন্তু অনেক বেশী। আর বেকার সমস্যা দূরীকরণে নিজের কাজ করাও জরুরী। আর  তাই উচিত পড়াশোনার করার পাশাপাশি বেশ কিছু বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করে ফেলা। বাংলাদেশে সরকারি চাকরি যেন সোনার হরিণ শিকার নামে খ্যাত। আর তাকে অভারকাম করার জন্য বেশ কিছু বিষয়ে নিজেকে সচেতন রাখা খুবই জরুরী।

বর্তমান বাজারে লক্ষ্যে করবেন যে সরকারি-বেসরকারি চাকুরির প্রতিযোগিতা বেশ অনেক। প্রচুর বেকারের সংখ্যা দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। পড়াশোনার পাশাপাশি স্কুল স্কুলেজের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রগণ করা জরুরী। বর্তমানের প্রত্যেকটি স্কুল কলেজে কম্পিউটার নামক যন্ত্রটি আছে কম্পিউটারের উপর নিজেকে দক্ষ করে গড়ে তোলা। সীমিত চাকরীর বাজারে শুধু পড়াশোনা আর ভালো রেজাল্টের মাধ্যমেই চাকরি পাওয়া সহজ ব্যাপার নয়। দরকার হলো বাস্তব অভিজ্ঞতা। বর্তমানে লক্ষ্যে করলে দেখতে পায় যে সকল চাকুরিতে পূর্ব অভিজ্ঞতার কথা বলা হয়ে থাকে। আর তাই স্কুল-কলেজ বন্ধের সুযোগটিকে কাজে লাগিয়ে নিজেকে আপডেট করাও বেশ গুরুত্বপূর্ণ।

আরো পড়ুন>>>   ভাইভা পরীক্ষায় ভালো করতে সুশান্ত পালের ১৭ পরামর্শ

ছাত্র/ছাত্রীদের পড়াশোনার পাশাপাশি যে বিষয় সমূহ আয়ত্ত করতে পারেঃ

১। সৃজনশীল মানুষিকতার মানুষ হতে হবে। এটা কেউ শিখিতে দিবে না। এটার অর্জনকারী আপনি নিজেই। কাজের প্রতি সৃজনশীল হওয়াটা অন্যতম ও জরুরী ব্যাপার। সৃজনশীল ধরনের মানুষকে কে পছন্দ না করে। আর তাই বলা যায় যে পড়াশোনার পাশাপাশি নিজের সৃজনশীল হিসেবে গড়ে তুলা উচিত। যা পড়াশোনার পাশাপাশি অর্জন করা যায়।

২। আত্মবিশ্বাস হলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ যা মধ্য এ গুণটি নেই সে সফলত অর্জন করার সম্ভাবনা খুবই কম। আত্মবিশ্বাস না থাকলে কখনো ইতিবাচক ফলাফল আনতে পারে না। আত্মবিশ্বাস এর মাত্র যার কাছে যেমন থাকবে ঠিক যে ততটাই এগিয়ে থাকবে। ইতিবাচক ফলাফল বয়ে আনার জন্য আত্মবিশ্বাসের ঘাটতি থাকলে চলবে না। সিদ্ধান্তহীনতা ভোগলে কখনোই ইতিবাচকের আশা করলে লাভ হবে না। আর আত্মবিশ্বাস না থাকলে আপনি কখনোই আপনার সেক্টরে ভালো কিছু করতে পারবেন না। আর তাই দ্বিধাগ্রস্থতা যেন না থাকে সিদ্ধান্তে যে রকম কিছু করতে হবে। আত্মবিশ্বাস থাকলে ভালো কিছু করা সম্ভব। যার ফলে পেয়ে যেতে পারেন বিশাল চাকরির সুযোগ। তার তাই এটি যেভাবেই সম্ভব শক্তিশালী করতে থাকুন।

আরো পড়ুন>>>  বিসিএস পরীক্ষায় ভালো করতে সুশান্ত পালের নির্দেশনা

৩। একটি কথা মাথায় রাখা উচিত যে মুখস্ত করে শুধু মাত্র সার্টিফিকেট পাওয়া যাবে কিন্তু জীবনে ভালো কিছু করতে হলে অবশ্যই থাকে তার নিজের বিষয় সম্পর্কে জ্ঞান থাকা উচিত। আর একাডেমিক রেজাল্টের পাশাপাশি নিজের স্কিল ডেভেলপ করাটা বেশ জরুরী।

৪। চলমান বিশ্বের সম্পর্কে জানাটা বেশ জরুরী। চলমান বিশ্ব সম্পর্কে বিস্তর ধারণা থাকা প্রত্যেকের দরকার। এজন্য কারেন্ট ওয়ার্ল্ড বা কারেন্ট এ্যাপেয়ার্স এ ধরনের বই বা সংবাদ পত্র পড়া উচিত। চাকরিতে বিশাল একটি বিষয় হলো সাধারণ জ্ঞান। আর তাই চলমান বিশ্বের প্রতি জ্ঞান থাকা জরুরী।

আরো পড়ুন>>>   ইংরেজিতে ভালো করার দুটি মূলমন্ত্র

৫। কম্পিউটারের প্রতি দক্ষতা যাহা আপনার চাকুরি পেতে সাহায্য করবে। স্কুল-কলেজের বন্ধের সময়গুলো কাজে লাগিয়ে কম্পিটারকে আয়ত্ত করে নেওয়াটা জরুরী। একাডেমিক পড়াশোনা ভালো না থাকলেও কম্পিউটারের ভালো জ্ঞান থাকলে ভালো চাকরি থাকা সম্ভব।

৬। যেকোন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করাটাও বেশ গুরুত্বপূর্ণ এতে আপনার অভিজ্ঞতা বাড়বে। প্রয়োজনে বিভিন্ন ম্যাগাজিন, পত্র-পত্রিকা ইত্যাদি পড়তে হবে।

স্বাআলো/এসএ