থানায় বিয়ে : ওসি বরখাস্ত

জেলা প্রতিনিধি, পাবনা : পাবনায় দলবেঁধে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর মামলা না নিয়ে থানা চত্বরে এক আসামির সঙ্গে ওই নারীর বিয়ে দেয়ার ঘটনায় ওসি ওবাইদুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

পাবনা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবনে মিজান বুধবার বিকেলে জানান, “পুলিশ সদর দপ্তর মঙ্গলবার রাতে এক ফ্যাক্সবার্তায় ওসি ওবাইদুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করার খবর জানায় আমাদের।” এর আগে এ ঘটনায় একই থানার এসআই একরামুল হককেও সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

গত ২৯ অগাস্ট পাবনা সদর উপজেলার দাপুনিয়া ইউনিয়নের এক নারীকে তার প্রতিবেশী রাসেল আহমেদ এক সহযোগীসহ ধর্ষণ করার দুদিন পর তাকে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অফিসে নিয়ে তিন দিন আটকে রেখে আরও চার-পাঁচজন ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ ওঠে।

পরে তিন সন্তানের জননী ওই নারী থানায় গেলে তার মামলা নথিভুক্ত না করে পুলিশ ওই রাতেই রাসেলের সঙ্গে তার বিয়ের ব্যবস্থা করে বলে ওই নারীর অভিযোগ।

আরো পড়ুন>> পাবনায় গৃহবধূর পেট থেকে বের হলো জ্যান্ত সাপ!

ঘটনা তদন্তের জন্য তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে পুলিশ। কমিটি গঠন করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগও। তারপর বিয়ের সত্যতা পাওয়ার কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের তদন্ত দলের সদস্যরা।

এ ঘটনায় প্রশাসনের সার্বিক পদক্ষেপের দিকে হাই কোর্ট নজর রাখছে বলে একটি বেঞ্চ জানায়।

পুলিশ কর্মকর্তা মিজান জানান,  “ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ঘটনা তদন্ত করে সত্যতা পাওয়ার পর প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে ওসিক ওবাইদুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করেছে।”

তিনি বলেন, পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদন সদর দপ্তরে পাঠানোর পর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ পর্যালোচনা শেষে মঙ্গলবার রাতে ওসি ওবাইদুল হককে সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত জানিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে।

স্বাআলো/এম