বিনামূল্যে চক্ষু সেবা পাবে পাঁচ হাজার রোগী

জেলা প্রতিনিধি, বগুড়া: ‘আল বাসার ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান বগুড়ায় পাঁচ হাজার রোগীকে বিনামূল্যে চক্ষু সেবা দিচ্ছে। বগুড়ার মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের অধীনে ইনস্টিটিউট অব হেল্থ টেকনোলোজি ক্যাম্পাসে ছয় দিনব্যাপী এই সেবা কার্যক্রম দেয়া হচ্ছে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দল গত শুক্রবার সকাল থেকে চক্ষু ক্যাম্পে উপস্থিত হয়ে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন।

সেবা নিতে আসা রোগীদের মধ্যে যাদের চোখের ছানি আছে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে অপারেশনসহ লেন্স স্থাপনে জন্য তাদের বাছাই করা হয়। আর যাদের চোখের ছানি নেই এমন রোগীদের প্রয়োজনীয় ওষুধ এবং চশমা বিনামূল্যে দেয়া হয়েছে। অপারেশনের জন্য বাছাই করা রোগীদের থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা ও করা হয়েছে।

আরো পড়ুন>>> হত দরিদ্র সেই তানিয়া এবার ঢাবির মেধা তালিকায়

সেবা নিতে আসা বগুড়ার হাসনা পারভীন, নুর জাহান বেগম জানান, তারা একেবারেই গরিব মানুষ। খাবারের টাকা জোগাড় করতেই হিমশিম খেতে হয়। কয়েক দিনের প্রচারে তারা এখানে চোখ দেখাতে আসেন। একজনের ছানি কাটতে হবে অন্যজন চশমাতেই সমাধান পেয়েছেন। এখন ভালোভাবে দেখতে পেরে খুশির ঝিলিক ঝরছে চোখে মুখে।

চক্ষু ক্যাম্পের কার্যক্রমের শুরুতে অতিথি হিসেবে ছিলেন বগুড়া জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহমেদ, সিভিল সার্জন ডা. গাউসুল আজম, বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা আলম নান্নু এবং সাধারণ সম্পাদক ডা. রেজাউল আলম জুয়েল, মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক এটিএম নুরুজ্জামান, আরএমও শফিকুর আমিন, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সামীর হোসেন মিশু, দৈনিক করতোয়ার সম্পাদক মোজাম্মেল হক লালু, ইন্সটিটিউট অব হেল্থ টেকনোলজির অধ্যক্ষ বগুড়া মেডিকেল কলজের অধ্যক্ষ বগুড়া টি এম এস এস এর পরিচলক ড. হোসনে আরা বেগম।

উক্ত চক্ষু ক্যাম্পে আরো উপস্থিত ছিলেন আল-বাশার ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের মহাপরিচালক ড. আহম্মেদ তাহের, হামিদ আলী মেডিকেলের পরিচালক ডা. আবু সাইদ এবং এইচ আর ম্যানোর নুরুজ্জামান খোশনবিশ।

আরো পড়ুন>>> পার্কের আড়ালে দেহ ব্যবসা, গ্রেফতার ৩০ তরুণ-তরুণী

চক্ষু ক্যাম্পে সার্বিক সহযোগিতা করছেন বগুড়া সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সামীর হোসেন মিশু। তিনি বলেন, এখানে একটি দাতা সংস্থার উদ্যোগে বগুড়া অঞ্চলের প্রায় পাঁচ হাজার সাধারণ মানুষ সেবা পেয়েছে। এতে সেবা নেয়া এসব গরিব মানুষগুলোর জন্য উপকার হয়েছে। তিনি আরো জানান, এখানে বগুড়া ছাড়াও বাইরের অনেক রোগীও এসেছিল। এছাড়াও ওই দাতা সংস্থার অতিথিরা এখানে সেবা দিতে পেরে তারাও ভালোলাগার অনুভূতি প্রকাশ করেছে।

উল্লেখ্য, যুক্তরাজ্যভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা আল বাসার ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন বাংলাদেশে অন্ধত্ব নিবারণের জন্য নিরলসভাবে করে যাচ্ছেন। রাজধানী ঢাকাসহ আরো দুটি জেলায় মোট চারটি নিজস্ব হাসপাতালের মাধ্যমে সংস্থাটি বাংলাদেশে চক্ষুরোগ চিকিৎসাকেন্দ্রীক সেবা কর্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে।

স্বাআলো/এসএ