আবরার হত্যায় স্বীকারোক্তি দিলেন অনিক

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ততার বিষয়ে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি দিয়েছেন আরেক আসামি অনিক সরকার।

আজ শনিবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম এই জবানবন্দি রেকর্ড করেন। অনিক সরকার বুয়েট ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ছিলেন।

এ নিয়ে আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার তিন আসামি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলেন।

শনিবার এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গোয়েন্দার (ডিবি) পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান অনিক সরকারের জবানবন্দি রেকর্ডের আবেদন জানান। আবেদনে বলা হয়, ঘটনায় সম্পৃক্ততার বিষয়ে অনিক স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দিতে রাজি হয়েছেন।

আদালত খাস কামড়ায় জবানবন্দি রেকর্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। তবে জবানবন্দিতে অনিক কী বলেছেন, সে বিষয়ে আদালত ও তদন্ত সংশ্লিষ্ট কেউ কিছু বলতে রাজি হননি।

শনিবার মাজেদুল ইসলাম নামে এই মামলার আরেক আসামির পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন অপর একটি আদালত।

আরো পড়ুন>> আবরার হত্যাকাণ্ড: জবানবন্দিতে জিওনের স্বীকাররোক্তি

পুলিশের খাতায় মাজেদুল ইসলাম নাম থাকলেও আদালতে তিনি বলেন, আমার নাম মাজেদুর রহমান নওরোজ।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে কমিটির উপ সমাজসেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররফ ও শুক্রবার উপ ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিওন হত্যাকাণ্ডে সম্পৃক্ততার বিষয়ে স্বীকারোক্তি দেন।

এরও আগে গত ৮ অক্টোবর সকালে জিওন, অনিকসহ এই মামলায় বুয়েট ছাত্রলীগের ১০ নেতাকর্মীর পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন একই আদালত। সেই রিমান্ড শেষ হওয়ার আগেই অনিক সরকারসহ তিনজন ঘটনায় সম্পৃক্ততার বিষয়ে স্বীকারোক্তি দিলেন।

গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যার শিকার হন মেধাবী ছাত্র ফাহাদ। এ ঘটনার পরদিন ফাহাদের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে রাজধানীর চকবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

স্বাআলো/এম