‘প্রধানমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন শুদ্ধি অভিযান কতদূর যাবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য বলেছেন, দেশে এক সাংঘাতিক অবস্থা বিরাজ করছে। বাধ্য হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন। ইতোমধ্যে তিনি তার পরিবারের সদস্য সংখ্যাও জানিয়ে দিয়েছেন। এ থেকে বোঝা যায় এই অভিযান কতদূর পর্যন্ত যাবে। এই অভিযানের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাস, দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার কাজে হাত দিয়েছেন।

আজ শনিবার যশোর জিলা পরিষদ মিলনায়তনে যশোর মহিলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলের প্রথম অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তেব্য পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য এসব কথা বলেন। সম্মেলনটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য সাফিয়া খাতুন।

জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরজাহান ইসলাম নীরার সভাপতিত্বে এসময়  বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার, যশোর-৬ আসনের সংসদ সদস্য সাবেক প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক, যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) ডা. নাসির উদ্দিন, মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শিরিন রুকসানা, জান্নাত আরা হেনরী, সাংগঠনিক সম্পাদক দিলরুবা জামান শেলী, ঝরনা বাড়ৈ, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দা রাজিয়া মোস্তফা, সহ-দপ্তর সম্পাদক সোহাইলা আফসানা ইকো, ত্রাণ সম্পাদক হোসেনরা বেগম রানী, সদস্য শাহীদা চৌধুরী তন্নী ও মালিহা জামান মালা।

সম্মেলনে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম। আর সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনটি সঞ্চালনা করেন যশোর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাজেদা পারভীন। সম্মেলনে জেলার আট উপজেলাসহ বিভিন্ন ইউনিটের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন বলেন, দল থেকে বিহরাগতদের নির্মূল করতে হবে। কারণ ইতোমধ্যে প্রমাণ হয়েছে দেশপ্রেমিক নয়, ক্যাসিনোপ্রেমী।

আরো পড়ুন>> শ্রমিক লীগের সুবর্ণজয়ন্তীতে যশোরে শোভাযাত্রা

জেলা আওয়ামী লীগের শাহীন চাকলাদার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুর্নীতি, অনিয়মত প্রতিহত করতে সন্ত্রাস, ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছেন। কিন্তু এই অভিযান ভিন্ন দিকে নিতে বুয়েটের এক মেধাবী ছাত্রকে হত্যা করা হয়েছে। নেত্রীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে। তাই অতীতের মতো মহিলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের রাজপথে সক্রিয় থাকতে হবে।

আরেক বিশেষ অতিথি মেজর জেনারেল (অব.) ডা. নাসির উদ্দিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের দিক দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সাথে সাথে দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রও চলছে। অতীতেও ষড়যন্ত্র ছিলো। এই ষড়যন্ত্র আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবেলা করতে হবে। নারী-পুরুষ সবাই মিলে দলকে শক্তিশালী করতে হবে।

আর প্রধান বক্তা মাহমুদা বেগম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে নারী জাগরণ হয়েছে। এখন নারীদের পায়ের নিচে মাটি তৈরি হয়েছে। দেশের অর্ধেকের বেশি নারী। তাই আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করতে হলে এই নারীদের সংগঠনের সাথে যুক্ত করতে হবে। নারীদের পেছনে ফেলে সংগঠন শক্তিশালী হবে না। আর মহিলা আওয়ামী লীগে তারাই নেতা হবেন যারা কর্মীবান্ধব।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা একেএম খয়রাত হোসেন, আব্দুল খালেক, যুগ্ম-সম্পাদক অ্যাডভোকেট আলী রায়হান, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম আফজাল হোসেন, মীর জহুরুল ইসলাম, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া পারভীন ডলি, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ প্রমুখ।

স্বাআলো/এম