ছাত্রলীগে পদ পেতে লিখিত ও ডোপ টেস্ট পরীক্ষা

জেলা প্রতিনিধি, লক্ষ্মীপুর : লক্ষীপুর জেলা ছাত্রলীগে পদ পেতে আগ্রহী শিক্ষার্থীদের লিখিত পরীক্ষার পাশাপাশি ডোপ টেস্টে অংশ নিতে হবে। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন শরীফ এমটাই শর্ত দিয়েছেন।

চলতি বছরের অক্টোবর ও নভেম্বরে লক্ষীপুর জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পুরো দুই মাস ব্যাপি অয়োজিত এই সম্মেলনে জেলা ছাত্রলীগের মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়া ১৫টি ইউনিটের নতুন কমিটি নির্বাচন করা হবে।

ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, অনুপ্রবেশ ও মাকাসক্তদের ঠেকাতে সম্ভাব্য প্রার্থীদের; লিখিত পরীক্ষা ও ডোপ টেস্টে উর্ত্তীণ হতে হবে।

গত ১৭ অক্টোবর কমলনগর উপজেলা ও হাজিরহাট উপকূল সরকারি কলেজে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে ২৩ জন প্রার্থীকে লিখিত পরীক্ষা ও ডোপ টেস্টে অংশগ্রহণ করতে হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর জীবন ও আর্দশ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন র্কমকাণ্ড, ছাত্রলীগের ইতিহাস ও র্আদশ, স্বাধীনতা যুদ্ধের ইতিহাস ও সমসাময়িক রাজনীতি বিষয়ে তাদের ৫০ মার্কসের লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হয়। সাথে সাথে দুটি ইউনিটের ২৩ জন প্রার্থীকে ডোপ টেস্টের পরীক্ষা নিতে হয়।

আগামী ২০ অক্টোবর চন্দগঞ্জ থানা, ২৯ অক্টোবর রায়পুর উপজেলা, রায়পুর পৌর সভা ও রায়পুর সরকারী কলেজ, ৭ নভেম্বর রামগঞ্জ উপজেলা, রামগঞ্জ পৌরসভা ও রামগঞ্জ সরকারী কলেজ, ১৪ নভেম্বর রামগতি পৌরসভা ও রামগতি সরকারী কলেজ, ২৪ নভেম্বর দত্তপাড়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, ২৮ নভেম্বর লক্ষীপুর সদর উপজেলা ও লক্ষীপুর পৌরসভার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

লক্ষীপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন শরীফ জানান, ছাত্রলীগ বঙ্গবন্ধুর আর্দশ লালন করে। দেশের ইতিহাস জানে এ ধরনের ছাত্রদের দ্বারা নেতৃত্ব নিশ্চিতের জন্য লিখিত পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে। আর কোন মাদকসেবী যেন কোনভাবেই নেতৃত্বে আসতে না পারে সে জন্য ডোপ টেস্ট নেয়া হচ্ছে। লক্ষীপুর জেলা ছাত্রলীগে যারা নেতৃত্বে দিবে তাদের হতে হবে মেধাবী ও মাদকসেবন মুক্ত।

লক্ষীপুর সচেতন নাগরিক কমিটির সদস্য গাজী গিয়াস উদ্দিন বলেন, সম্প্রতি বুয়েট ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনায় ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি সংকট দেখা দেয়। বর্তমানে লক্ষীপুর জেলা ছাত্রলীগ যেভাবে নেতৃত্ব র্নিবাচন করছে এটা দৃষ্টান্তমূলক। সারা দেশে এ পদ্ধতি গ্রহণ করলে মেধাবী ও মাদকসেবী মুক্ত ছাত্রলীগ আগামীর ছাত্র নেতৃত্বে থাকবে।

স্বাআলো/ডিএম