আমার পরিবার ধ্বংস হয়ে গেছে : ওসি মোয়াজ্জেম

জেলা প্রতিনিধি, ফেনী : ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেন দাবি করেছেন, থানায় নারী কর্মকর্তা না থাকায় তিনি নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন হয়রানির বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন। জিজ্ঞাসাবাদের ভিডিও তার মোবাইল ফোন থেকে চুরি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ‌্যমে ছড়ানো হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন মোয়াজ্জেম হোসেন।

বৃহস্পতিবার রাফিকে জিজ্ঞাসাবাদের ভিডিও ছড়ানোর মামলায় বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালতে আত্মপক্ষ সমর্থনের শুনানিতে তিনি বলেন, আমি এ মামলার মাধ্যমে বড় সাজা পেয়ে গেছি। আমার ছেলে স্কুলে যেতে পারে না। আমার মেয়ে এবং মা শয‌্যাশায়ী। আমার পরিবার ধ্বংস হয়ে গেছে। আমি ১০টি খুন করলেও এমন সাজা বোধহয় আমার হতো না। ওসি মোয়াজ্জেম নিজেকে নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রার্থনা করেন। তিনি আদালতে লিখিত বক্তব্যের পাশাপাশি মৌখিক বক্তব্য দেন।

আরো পড়ুন>> ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

দুপুরে এ মামলায় আত্মপক্ষ শুনানি শুরু হয়। সে সময় ওসি মোয়াজ্জেম কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে ছিলেন।

সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর নজরুল ইসলাম শামীম শুনানির শুরুতে ওসি মোয়াজ্জেমকে তার বিরুদ্ধে চার্জ গঠন এবং বাদীসহ ১১ জনের সাক্ষ্য ও অভিযোগ পড়ে শোনান। প্রসিকিউটর সাবেক ওই ওসিকে জিজ্ঞেস করেন, আপনি দোষী না নির্দোষ? ওসি মোয়াজ্জেম নিজেকে নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রার্থনা করেন। ওসি মোয়াজ্জেমের কিছু বলার আছে কি না এবং সাফাই সাক্ষ্য দেবেন কিনা জানতে চান বিচারক। জবাবে মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, সাফাই সাক্ষ্য দেবেন না, তবে লিখিত বক্তব্য দেবেন। লিখিত বক্তব্যের কিছু তিনি মৌখিকভাবে বলতে চান। বিচারক অনুমতি দেন। এরপর তিনি মৌখিক বক্তব্য দেয়া শুরু করেন।

স্বাআলো/এম