লবণের কেজি ১৫০ টাকা!

জেলা প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার: ‘চাচী তাড়াতাড়ি বাজার থেকে লবণ আনো। কাল থেকে ২’শ টাকা কেজি হবে, আমরা ৫ কেজি এনেছি। আম্মার কাছে টাকা নাই আব্বা আসলে আরো আনব। এভাবেই গ্রামের প্রতিবেশির ঘরে গিয়ে লবণ কেনার জন্য বলছিল ১৪ বছরের কিশোর।

শুধু এই একটি গ্রাম নয় সোমবার সন্ধ্যার পর জেলার প্রায় গ্রামেই লবণ কেনার জন্য এমন অস্থিরতা শুরু হয়। মানুষের মুখে মুখে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সয়লাব হয়ে যায় লবণের দাম বৃদ্ধির খবর। ৩০ টাকা থেকে ৪০ টাকা ৫০ টাকা যা রাত ১০টার দিকে ১৫০ এ পৌঁছে।

লবণের মূল্য আগামীকাল ২০০ টাকায় পৌঁছাবে শুনে বাজারে দৌড়াতে থাকেন শ্রমজীবীসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ। ৫ থেকে ১০ কেজি যার যা সামর্থ আছে সর্বোচ্চ কেনার চেষ্টা করেছেন। অন্যদিকে জেলাব্যাপী অনেক ব্যবসায়ী লবণ মজুদ করতে থাকেন আরো দাম বৃদ্ধির আশায়।

আরো পড়ুন>>> পেঁয়াজের পর এবার লবণ নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড

প্রচুর চাহিদা এবং অধিক মুনাফার আশায় মজুদের চেষ্টার কারণে গ্রাহকের চাহিদার তুলনায় লবণ দিতে পারেনি অনেক মুদির দোকানিরা। মৌলভীবাজারের বাড়লেখা উপজেলার খলিলুর রহমান জানান, তার এলাকার সন্ধ্যার পর থেকেই লাইন ধরে মানুষ লবণের দোকানে ভিড় করে। অনেকে ৫ থেকে ১০ কেজি পর্যন্ত কেনেন।

মৌলভীবাজারের জুড়ি উপজেলার করিম নামের এক দিনমজুর ১০ কেজি লবণ কেনার উদ্দেশ্যে পার্শ্ববর্তী দোকানে যান কিন্তু গিয়ে দেখেন লবন শেষ হয়ে গেছে। পাশের দোকান থেকে ১০ কেজি চাহিদার তুলনার ৫ কেজি নিয়ে বাড়ি ফেরেন।

তবে কীভাবে জানলেন লবণের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে জানতে চাইলে তা বলতে পারেননি, তিনি লোকমুখে শুনেছেন বলে জানিয়েছেন। এদিকে জেলার রাজনগর উপজেলায় ১০০ টাকা কেজি ধরে লবণ বিক্রি হয়েছে বলে দাবি করেছেন মুজাম্মিল আহমদ লিংকন নামের এক যুবক।

অন্যদিকে শ্রীমঙ্গলের এনামুল হক দাবি করেছেন শ্রীমঙ্গলের সেন্ট্রাল রোডের অনেক ব্যবসায়ী দাম বৃদ্ধির আশায় লবণ মজুদ করেছেন। ১২০ টাকা করে লবণ বিক্রি হতে শুনেছেন।

আরো পড়ুন>>> চৌগাছায় চার পেঁয়াজ ব্যবসায়ীকে জরিমানা

তবে লোকমুখে লবণের এমন দামের কথা প্রচার হলেও। কম দামে লবণ কিনেছেন এমন কাউকে পাওয়া যায়নি। লবণের দাম বৃদ্ধির গুজব প্রতিরোধে জেলার বিভিন্ন এলাকায় মাইকিং করেছে প্রশাসন।

এই গুজবে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জানিয়ে শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেছেন, আমরা এরই মধ্যে গুজবের বিরুদ্ধে মাইকিং বের করিয়েছি। যারা এই গুজব ছড়াচ্ছে তাদের খুঁজে বের করার জন্য আমরা কাজ করছি। তাছাড়া আমরা এই মুহূর্তে শ্রীমঙ্গল থানাকে নিয়ে বাজারে অভিযানে বেরিয়েছি। হঠাৎ করে এ রকম দাম বাড়বে না। এই গুজবে কেউ কান দেবেন না।

অন্যদিকে লবণ মজুদ করার চেষ্টায় সিএনজি অটোরিকশাসহ কমলগঞ্জের এক ব্যবসায়ীকে আটক করে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  আশেকুল হক।

তিনি জানান, রাত সাড়ে ১১টার দিকে ধলাই নদীর নতুন ব্রিজ এলাকায় সিএনজিতে করে ৩৭৫ কেজি লবণ মজুদের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ার সময় আটক করে এক ব্যবসায়ীকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং লবণসহ গাড়ি কমলগঞ্জ থানায় জব্দ করা হয়।

লবণের দাম বৃদ্ধিকে গুজব জানিয়ে মৌলভীবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসাইন জানান, পরিবেশ পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করা জন্য কুচক্রী মহলের চক্রান্ত সবাইকে সচেতন হতে হবে। প্রশাসনকে কঠোর হতে হবে। কোথাও লবণের দাম বাড়েনি।

স্বাআলো/এসএ