ধর্মঘট স্থগিতের পর পাম্পে ভিড়

রংপুর ব্যুরো : ১৫ দফা দাবিতে অর্দিষ্টকালের ধর্মঘট অবশেষে স্থগিত করেছে পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন ও ট্যাংকলরি মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিনে আজ সোমাবার জ্বালানী প্রতিমন্ত্রীর সাথে বৈঠকে ইতিবাচক আশ্বাসে ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়।

এদিকে ধর্মঘট স্থগিতের পর সড়ক জুড়ে আবারও যান চলাচল বেড়েছে। মোটরসাইকেল, বাস, ট্রাক, ট্যাংকলরি, কাভার্ডভ্যান, পিকআপ, মাইক্রোবাস ও মিনিবাস আবার চলাচল শুরু করেছে। ধর্মঘট প্রত্যাহারে স্বস্তি ফিরে এসেছে চলতি রবি মৌসুমে বোরোর বীজতলাসহ আলু, তামাক, সরিষাসহ শীতকালীন সবজি চাষাবাদ সেচ নিয়ে চিন্তিত কৃষকদের মধ্যেও।

অনেক কৃষককে পাম্প থেকে বেশি পরিমাণে ডিজেল ক্রয় করতেও দেখা যায়। যার ফলে স্বস্তি ফিরে এসেছে পরিবহন মালিক, শ্রমিকসহ সাধারণ মানুষের মধ্যে। এতে করে প্রতিটি পাম্পে ক্রেতাদের ভিড় দেখা গেছে।

অন্যদিকে, রংপুরের ৮৫টি পাম্পসহ বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা ডিপো থেকে তেল উত্তোলন, পরিবহন ও বিপণন শুরু হয়েছে।

নগরীর শাপলা চত্বরের মেসার্স ইউনিক ট্রেডার্সের ব্যবস্থাপক আমিনুল ইসলাম বলেন, সরকারের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় নেতারা ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত ধর্মঘট স্থগিত করেছেন। এখন আমরা তেল বিক্রি করছি। গ্রাহকরা আর কোন ভোগান্তির শিকার হচ্ছে না।

রংপুর বিভাগীয় দাহ্য পদার্থ বহনকারী ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সিদ্দিক হোসেন মংলা জানান, আজ দুপুরের পর থেকে শ্রমিকরা ডিপো থেকে জ্বালানি সরবরাহ শুরু করেছেন। বিকেলের মধ্যে তেল সরবরাহ ও পরিবহন স্বাভাবিক হবে।

রংপুর জেলা পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা সোহরাব চৌধুরি টিটু বলেন, সরকারের আশ্বাসে আপাতত ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত ধর্মঘট স্থগিত হয়েছে। এর মধ্যে আমাদের দাবি বাস্তবায়নে কোন পদক্ষেপ না নেয়া হলে পরবর্তীতে সারা দেশে বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচি দেয়া হবে।

পেট্রোল পাম্প মালিক ও জ্বালানি তেল ব্যবসায়ী সমিতি রংপুর বিভাগীয় কমিটির আহ্বায়ক শাহ্ মোহাম্মদ সেলিম জানান, দীর্ঘদিন ধরে দাবি আদায়ে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরসহ সংশ্লিষ্টদের ধর্ণা দিয়েও কোন কাজ হয়নি। কেউ কোন পদক্ষেপ নেননি। আলোচনায় বসার নামে কালক্ষেপণ করা হয়েছে। আমরা বাধ্য হয়ে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলাম। জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন। তার সাথে বৈঠকের পর আমরা ধর্মঘট স্থগিত করেছি।

জ্বালানি তেল বিক্রির কমিশন ও ট্যাংকলরির ভাড়া বৃদ্ধি, পুলিশি হয়রানি বন্ধসহ ১৫ দফা দাবিতে গত রবিবার থেকে তিন বিভাগের ২৬ জেলায় অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট পালন করেছে পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন ও ট্যাংকলরি মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। এতে জ্বালানি তেল উত্তোলন, পরিবহন ও বিপণনসহ সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ ছিল। আজ সোমবার জ্বালানী প্রতিমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের আশ্বাসে এ ধর্মঘট স্থগিত করা হয়।

স্বাআলো/ডিএম