অর্থ আত্মসাৎ মামলায় ইয়াবাসেবী প্রধান শিক্ষক কারাগারে

জেলা প্রতিনিধি, লক্ষ্মীপুর: লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার নুরুল্যাপুর আঞ্জুমান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক সাইফ উদ্দিনকে টাকা আত্মসাতের মামলায় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার শিক্ষক সাইফ উদ্দিন সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়। বাদী পক্ষের আইনজীবী মোর্শেদ আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেন। বছর দুয়েক আগে প্রধান শিক্ষক সাইফ উদ্দিন ইয়াবা সেবন করেছেন এমন একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছিল।

আইনজীবী মোর্শেদ আলম জানান, এর আগে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির নির্দেশে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের ৪ মার্চ তাঁর বিরুদ্ধে ওই বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শ্যামল চন্দ্র মজুমদার বাদী হয়ে ১৭ লাখ ৭৭ হাজার টাকা আত্মসাতের মামলা করেন।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, ওই প্রধান শিক্ষক থাকাকালীন সাইফ উদ্দিন বিদ্যালয়ের বিভিন্ন খাতের টাকা ব্যাংকে জমা না দিয়ে ১৭ লাখ ৭৭ হাজার ৩ ১৮ টাকা আত্মসাৎ করেন। পরে অডিট রির্পোটে টাকা আত্মসাতের বিষয়টি প্রকাশ পায়।

বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী টিপু সুলতান,রাসু আক্তার,এমরান হোসেন, সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী আফরোজা আক্তার,তাছিলিমা বেগমসহ অনেক শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, সে সময় প্রধান শিক্ষক সাইফ উদ্দিন স্কুলে এসেও ক্লাস না নিয়ে মাদকাসক্তদের নিয়ে আড্ডায় ব্যাস্ত থাকতেন। এছাড়া ২০১৭ খ্রিষ্টাব্দে প্রধান শিক্ষকের ইয়াবা সেবনের ভিডিও ভাইরাল হয়।

নামপ্রকাশ না করা শর্তে ঐ বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক জানান, বিদ্যালয়ের তখনকার আমলের প্রধান শিক্ষক সাইফ উদ্দিন কোথায় কিভাবে ইয়াবা সেবন করেছে, তা কি করে ভিডিও ও সামাজিক যোগাযোগের ছড়িয়ে দিয়েছিল তা জানা যায়নি। কিন্তু এতে করে প্রতিষ্ঠানের ভাবমুর্তি নষ্ট হয়েছে। এই ঘটনায় ২০১৭ খ্রিষ্টাব্দে শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে শিক্ষকের অবসারণ দাবি করে। ওই সময় সাইফ উদ্দিন স্যার শোধরালে এখন আর জেল হাজাতে জেতে হতো না।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি এম এ মোমেন মুরাদ জানান, সাবেক প্রধান শিক্ষক সাইফ উদ্দিন নুরুল্যাপুর আঞ্জুমান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ে সময়ে টাকা আত্মসাতসহ অভিযোগ রয়েছে ইয়াবা সেবনেরও। শিক্ষক সাইফ উদ্দিনকে প্রত্যাহারের জন্য আন্দোলনও করেছেন বিদ্যালয়ে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

স্বাআলো/এসএ