আজ যুক্তরাজ্যের নির্বাচন, প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ৯ বাংলাদেশি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ব্রেক্সিট প্রশ্নকে সামনে রেখে আজ যুক্তরাজ্যে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গত দুই বছরের মধ্যে দেশটিতে এটি দ্বিতীয় সাধারণ নির্বাচন। নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এবং প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিনের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৯ বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত প্রার্থী। এর মধ্যে লেবার পার্টি থেকে সাত জন এবং লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক ও কনজারভেটিভ পার্টি থেকে আছেন একজন করে প্রার্থী। ৯ জনের মধ্যে সাতজনই নারী। এদের মধ্যে আলোচনা বেশি হচ্ছে ব্রিটিশ-বাংলাদেশি পাঁচ নারীকে নিয়ে, যাদের তিনজন এখন সংসদ সদস্য। নিজ আসন ধরে রাখতে লড়ছেন রুশনারা আলী, টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক ও রূপা হক। নির্বাচনী লড়াইয়ে নামা বাংলাদেশীদের পরিচয় একবার জেনে নেওয়া যাক-

টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক

হ্যামস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসন থেকে লেবার পার্টির হয়ে লড়ছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক। পরপর দুইবার এ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। ওয়েস্ট মিনিস্টারে ১০ ভালো বক্তার তালিকায়ও প্রথম বাঙালি এমপি হিসেবে জায়গা করে নেন টিউলিপ। তিনি ২০১০ সালে ক্যামডন কাউন্সিলে নির্বাচিত হন প্রথম বাঙালি প্রতিনিধি হিসেবে। এবারের নির্বাচনে তৃতীয়বারের মতো এ আসন থেকে প্রার্থী হয়েছেন টিউলিপ। লন্ডনের আসনগুলোর মধ্যে নব্বইয়ের দশক থেকে এ আসনটি ব্রিটেনের তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ আসনগুলোর তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। এবারও সেখানে তীব্র লড়াই হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

রূপা হক

গত দুই বারের নির্বাচিত আরেক বাঙালি এমপি প্রার্থী হচ্ছেন ইলিং সেন্ট্রাল ও এক্টন আসনের প্রার্থী ড. রূপা হক। ১৯৭২ সালে পাবনায় জন্ম নেয়া রূপা হকের অধ্যাপনার পাশাপাশি লেখক, কলামিস্ট ও মিউজিশিয়ান হিসেবে পরিচিতি রয়েছে। ১৯৯১ সালে তিনি লেবার পার্টির সদস্য হন। ২০১০ সালে লন্ডনের ইলিং কাউন্সিলের ডেপুটি মেয়রের দায়িত্ব পালন করেন। এমপি নির্বাচিত হন ২০১৫ এবং ২০১৭ সালের নির্বাচনে।

রুশনারা আলী

২০১০ সালে প্রথম এমপি নির্বাচিত হন রুশনারা আলী। ১৯৭৫ সালে সিলেট জেলার বিশ্বনাথে জন্ম তার। মাত্র সাত বছর বয়সে পরিবারের সঙ্গে লন্ডনে পাড়ি জমান রুশনারা। এরপর থেকে তার আবাস ব্রিটেনের টাওয়ার হ্যামলেটে। টাওয়ার হ্যামলেটের মালবারি স্কুল ও টাওয়ার হ্যামলেট কলেজে লেখাপড়া শেষে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্ট জনস কলেজে দর্শন, রাজনীতি ও অর্থনীতি বিষয়ে পড়াশোনা করেন তিনি। এর আগে রুশনারা আলী তিনবার এমপি নির্বাচিত হন।

আফসানা বেগম

বাঙালি অধ্যুষিত টাওয়ার হ্যামলেটসের পপলার অ্যান্ড লাইম হাউস সংসদীয় আসনে লেবার পার্টির প্রার্থী হয়ে লড়ছেন আফসানা বেগম। ওই আসনটি লেবারদের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত। তাই আপ্সানার জয় অনেকটা নিশ্চত বলেই মনে করা হচ্ছে। আফসানা বেগম টাওয়ার হ্যামলেটস লেবার পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান এবং লেবার পার্টির লন্ডন রিজিয়নের সদস্য। তিনি টাওয়ার হ্যামলেটসের সাবেক কাউন্সিলর এবং মেয়র প্রয়াত মনির উদ্দিন আহমেদের মেয়ে।

ড. বাবলিন মল্লিক

এবারের নির্বাচনে যুক্তরাজ্যের কার্ডিফ সেন্ট্রাল আসন থেকে উদার ধারার রাজনৈতিক দল লিবডেমের (লিবারেল ডেমোক্র্যাট) হয়ে একমাত্র বাংলাদেশি লড়ছেন। বাবলিন মল্লিক মৌলভীবাজার সদর উপজেলার কচুয়া গ্রামের মোহাম্মদ ফিরোজের মেয়ে। ছোটবেলায় মা-বাবার সঙ্গে যুক্তরাজ্যে আসেন। বায়োক্যামেস্ট্রিতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নিয়েছেন। তিনি কার্ডিফ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি করেছেন। কাউন্টি কাউন্সিলের প্রথম বাঙালি ও মুসলিম নারী হিসেবে গত কাউন্সিল নির্বাচনে বিপুল ভোটে কাউন্টি কাউন্সিলর নির্বাচিত হন।

মেরিনা আহমেদ

লন্ডনের বেকেনহাম আসন থেকে লেবার পার্টির মনোনয়ন পেয়েছেন মেরিনা মাসুমা আহমেদ। এ আসনে বর্তমানে এমপি হিসেবে আছেন ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি। নারায়ণগঞ্জে জন্ম নেয়া মেরিনা আহমেদ মা-বাবার সঙ্গে ৬ মাস বয়সে যুক্তরাজ্যে যান। তার মা মমতাজ বেগম বর্তমানে ঢাকার বনানীতে বাস করছেন। চার ভাইয়ের সঙ্গে মেরিনা লন্ডনেই থাকেন। পাবনার কৃতি সন্তান ডা. ইমরুল কায়েস মেরিনার স্বামী। এ দম্পতির রেবেকা এবং এলিজা নামে দুটি কন্যাসন্তান রয়েছে। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। তিনি ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতিও নির্বাচিত হয়েছিলেন। গত ৩০ বছর ধরে তিনি লেবার পার্টির সদস্য।

আনোয়ারা আলী

বর্তমান ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের কনজারভেটিভ পার্টির থেকে একমাত্র বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থী সাবেক কাউন্সিল ডা. আনোয়ার আলী। গত নির্বাচনেও তিনি কনজার্ভেটিভ পার্টি থেকেই নির্বাচনে অংশ নেন। আনোয়ারা আলী পেশায় একজন চিকিৎসক। গত দুই দশকের বেশি সময় ধরে চিকিৎসার পাশাপাশি সক্রিয় রাজনীতির মাঠে রয়েছেন। সাড়ে চার বছর বয়সে মা-বাবার সঙ্গে লন্ডনে যান আনোয়ারা। তার বেড়ে ওঠা ও শিক্ষাজীবন কেটেছে লন্ডনেই। আনোয়ারা একজন ব্যবসায়ীও। তিনি সাংবাদিক রেজা আহমদ ফয়সল চৌধুরীর স্ত্রী ও এক পুত্রসন্তানের জননী। চিকিৎসায় গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য ২০১৮ সালে ব্রিটিশ সরকারের এমবিই সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন। সর্বশেষ নির্বাচনে তিনি টাওয়ার হ্যামলেটসের প্রার্থী হয়েছিলেন। আর এবারের নির্বাচনে তিনি লন্ডনের হ্যারো ওয়েস্ট আসন থেকে লড়ছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান লেবার কো-অপারেটিভ পার্টির এমপি রিচার্ড থমাস।

নুরুল হক আলী

স্কটল্যান্ডের অ্যাবারডিন নর্থ সংসদীয় এলাকার লেবার পার্টির প্রার্থী হয়েছেন নুরুল হক আলী। লন্ডনের নিউহাম এলাকার একজন লেবার কাউন্সিলর হিসেবে ১৯৯৮ থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। ডেপুটি চেয়ারম্যান ফর রিজেনারেশন হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশের সুনামগঞ্জ জেলার শাহানপাড়া এলাকার মিরপুরে জন্মগ্রহণ করেন নুরুল হক। প্রায় ২৭ বছর ধরে তিনি লেবার পার্টির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত।

আলী আখলাকুল

আলী আখলাকুলও সিলেটের সন্তান। সাত বছর বয়সে বাবার সঙ্গে ইংল্যান্ডে পাড়ি জমান তিনি। বাবা ছিলেন ব্যবসায়ী। যুক্তরাজ্যের এবারের মধ্যবর্তী নির্বাচনে হার্টফোটশেয়ার থেকে লেবার দলের প্রার্থী হয়ে লড়ছেন তিনি।

স্বাআলো/ডিএম