ঝুঁকিপূর্ণ সেতু দিয়ে ১০ গ্রামের মানুষের চলাচল

জেলা প্রতিনিধি, কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার  কাইম বড়াইবাড়ির ঢেলখাওয়ার সেতুটির দুই দিকের রেলিং না থাকায় প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুঁকি চলাচল করছেন ১০টি গ্রামের শত শত মানুষ। গ্রামগুলি হলো, কাইম বড়াইবাড়ি, চর বড়াইবাড়ি, হলোখানা, ঢেপরীর চর, খোচাবাড়ি, শান্তির চর, শুংশুঙ্গির হাট, ভাংড়ীর বাজার, ফকিরটারী, রাঙ্গামাটি।

ব্রিজটির রেলিং গত ১০-১২ বছর আগে ভেঙে গেলেও প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ব্রিজটির ওপর দিয়ে যাতায়াত করছে।

স্থানীয় শাহজালাল, আলী হোসেন ও জবু মিয়া বলেন, আমাদের এলাকায় কেউ গুরুতর অসুস্থ হলে চিকিৎসার প্রয়োজনে কুড়িগ্রাম মেডিকেলে নিতে চাইলে ব্রিজের কারণে অ্যাম্বুলেন্স  এলাকায় প্রবেশ করে না। এলাকার শিশুরা ব্রিজটির ওপর দিয়ে স্কুলে যাওয়া কিংবা ফেরার সময় আমরা আতঙ্কিত থাকি।

পথচারী তাইজুল ইসলাম ও লুৎফর রহমান  বলেন, ব্রিজের রেলিং না থাকায় রাতের অন্ধকারে সাইকেল নিয়ে চলাচলের সময়িআমরা সাইকেল থেকে নেমে  আতঙ্ক নিয়ে হেটে চলাচল করি। অনেক সময় ব্রিজের ওপর থেকে মানুষ ও গরু ছাগল পড়ে গিয়ে আহত হয়।

ভোগডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান  সাঈদুর রহমান বলেন,  জনগুরুত্বপূর্ণ এই ব্রিজটি যেন দ্রুত সংস্কার হয় সে জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

কুড়িগ্রাম এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী  আবদুল আজিজ বলেন, অনেকগুলো ব্রিজের রিপিয়ারের তালিকা দেয়া হয়েছে। আমি দেখব সেই তালিকায় এই ব্রিটির নাম আছে কি না।

স্বাআলো/এসএ