এরশাদের আদর্শ বাস্তবায়নের মাধ্যমে ক্ষমতায় যাবে জাপা

রংপুর ব্যুরো: এরশাদের আদর্শ বাস্তবায়নের মাধ্যমে জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় যাবে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। 

আজ শনিবার বিকেলে রংপুর মহানগরীর দর্শনার পল্লীনিবাসে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা পল্লীবন্ধু প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কবর জিয়ারত উপলক্ষে আয়োজিত শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় তিনি এসব কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, রংপুর হলো জাতীয় পার্টির ঘাটি। এখানেই শুয়ে আছেন দলের প্রতিষ্ঠাতা। তার কবর জিয়ারতের মাধ্যমে নতুন কমিটি কাজ শুরু করলো। আমরা এরশাদের আদর্শকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য সকল চেষ্টা চালিয়ে যাব।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি,  সাবেক মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার, সাবেক মহাসচিব জিয়াউদ্দিন বাবলু, কো-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি,  প্রেসিডিয়াম সদস্য রংপুর মহানগর সভাপতি ও সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, প্রেসিডিয়াম সদস্য মজিবুল হক চুন্নু প্রমুখ।

আরো উপস্থিত ছিলেন প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুস সাত্তার, এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা, আবুল কাশেম, রংপুর বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যারিষ্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, এটিআই তাজ, যুগ্ম মহাসচিব হাসিবুল ইসলাম জয়সহ কেন্দ্রীয় ও সারাদেশের বিভিন্ন বিভাগ-জেলার নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে তিনি নতুন কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে মহাসচিব, সকল কো-চেয়ারম্যান, এমপি ও প্রেসিডিয়াম সদস্যদের নিয়ে এরশাদের কবর জিয়ারত করার জন্য রংপুরে আসেন। এরপর তারা এরশাদের কবরের পাশে সুরা ফাতিহা পাঠ ও তার রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া মোনাজাত করেন। পরে তারা রংপুর বিভাগীয় জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। ২৮ ডিসেম্বর কাউন্সিলের পর জাতীয় পার্টির নতুন কমিটি এরশাদের কবর জিয়ারতের জন্য প্রথম রংপুর আসলেন।

এ সময় জিএম কাদের এমপি বলেন,  ডিসিসি নির্বাচন সুষ্ঠু হবে বলে আমরা মনে করছি। আশাকরি কেউ এই নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘন করবেন না। জাতীয় পার্টি এরশাদ এর আদর্শে অনুপ্রাণিত হতে আমরা তার কবর জিয়ারত করে কার্যক্রম শুরু করলাম।

এ দিকে কবর জিয়ারত উপলক্ষে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের আগমনের খবর পেয়ে সকাল থেকেই পল্লীনিবাসে বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে নেতাকর্মীরা আসা শুরু করেন। হাজার হাজার মানুষের পদচারণায় মাজার প্রাঙ্গণ মুখরিত হয়ে ওঠে।

স্বাআলো/এসএ