ফুটফুটে পুত্র সন্তানের মা হলো এক পাগলী, তবে বাবা হয়নি কেউ

জেলা প্রতিনিধি, বাগেরহাট: বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলায় এক পাগলী ফুটফুটে পুত্র সন্তান প্রসব করেছে। সোমবার দুপুরে এ ঘটনার পর থেকে  হাসপাতালে ভর্তি  পাগলী মা ও শিশুটি সুস্থ রয়েছে। তবে  মঙ্গলবার বিকেলে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নবজাতক ওই শিশুর পিতার দাবী নিয়ে কেউ আসছে না বা  কাউকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা। এ খবর ছড়িয়ে পড়ায় মঙ্গলবার সকাল থেকে নবজাতক ওই সন্তানকে গ্রহণ করতে একাধিক নিঃসন্তান দম্পতি হাসপাতাল চত্বরে দৌড়ঝাঁপ করছেন।

উপজেলা সমাজ সেবা অফিস থেকে পাগলী মা ও শিশুর চিকিৎসা ব্যয় বহন করছে বলে চিতলমারী হাসপাতাল থেকে জানানো হয়েছে। সূত্র জানায়,  সোমবার সকালে উপজেলার বাখরগঞ্জ বাজারে এক পাগলী রাস্তার পাশে প্রসব যন্ত্রনায় ছটফট করছিল। স্থানীয় সাড়ে চারআনী গ্রামের  ফারুক খানের স্ত্রী জাহানারা বেগম তাকে উদ্ধার করে নিজ বাড়িতে নিয়ে যান। বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে  ওই পাগলী স্বাভাবিক প্রসবের মাধ্যমে একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেয়। পরে থানায়  সংবাদ গেলে  পুলিশ নবজাতক ও মাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

আরো পড়ুন>>>  ধর্ষণের সাথে পুলিশ কর্মকর্তার সম্পৃক্ততার প্রমাণ মেলেনি

চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. মামুন হাসান জানান, বর্তমানে নবজাতক ও মা সুস্থ্য রয়েছে। মহিলা বিভাগের ১ নং বেডে তাদের পরিচর্যা ও তত্বাবধানের জন্য অতিরিক্ত নাস নিয়োগ করা হয়েছে। উপজেলা সমাজসেবা অফিসার  আবুল হোসেন বলেন, উপজেলায় শিশু কল্যাণ বোর্ড আছে আর বোর্ড বসে সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী নবজাতকের নিরাপদ জীবনযাপনের ব্যবস্থা করা হবে। আর যে কেউ চাইলেই নবজাতককে নিতে পারবে না। এ ব্যাপারে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে।

চিতলমারী থানার ওসি মীর শরীফুল হক বলেন, ২০ জানুয়ারি দুপুর বেলা খবর পাই বাখরগঞ্জে এক পাগলী মায়ের সন্তান প্রসব হয়েছে। সেখানে দ্রুত পুলিশ পাঠিয়ে মা ও শিশুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করার ব্যবস্থা করি। তার নাম পরিচয় জানা যায়নি।আর শুনেছি অনেকেই এই বাচ্চা গ্রহণ করার জন্য হাসপাতালে ভিড় জমাচ্ছেন।  হাসপাতালে নিরাপত্তার জন্য  অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

স্বাআলো/এসএ