মাকে কুপিয়ে হত্যা করলো মেয়ে

জেলা প্রতিনিধি, পিরোজপুর: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় বঁটি দিয়ে কুপিয়ে মাকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহতের নাম ফিরোজা নাসরিন (৫৬)। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পৌরশহরে উত্তর কলেজপাড়া এলাকায় নিজ বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনা মেয়ে তামান্না জেবীন রুমানাকে (২৮) আটক করেছে পুলিশ।

আরো পড়ুন>>>  জিন তাড়ানোর নামে পানিতে চুবিয়ে হত্যা, গ্রেফতার ৩

নিহত ফিরোজা নাসরিন সাবেক অগ্রণী ব্যাংক শাখা ব্যবস্থাপক ও মৃত হেমায়েত উদ্দিনের স্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ফিরোজা নাসরিন তার দুই সন্তান ছেলে রিয়াজ ও মেয়ে তামান্না জেবীন রুমানাকে নিয়ে পৌর শহরের (৬নং ওয়ার্ড) উত্তর কলেজপাড়ায় নিজ বাসায় বসবাস করছিলেন।

গত কয়েক দিন ধরে তামান্না মানসিক ভারসাম্যহীন আচরণ করছিলেন।

বুধবার সকালে মা ও বোনকে বাসায় রেখে ছেলে রিয়াজ বোনের জন্য চিকিৎসক আনতে যান। এ সময় বোন তামান্না জেবীন রুমানা ঘরের মধ্যে মা ফিরোজা নাসরিনকে রান্নাঘরের বঁটি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে।

পরে ছেলে রিয়াজ বাসায় ফিরে দরজায় নক করেন। এ সময় দরজা না খুললে স্থানীয়দের নিয়ে বাসার দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে রান্নাঘরে ক্ষতবিক্ষত রক্তাক্ত মায়ের মরদেহ দেখতে পেয়ে থানা পুলিশকে খবর দেন।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি মাসুদুজ্জামান জানান, মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়ে তার মাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

তবে এ খুনের পেছনে অন্য কোনো কারণ আছে কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নিহতের লাশ উদ্ধার ও ঘাতক মেয়ে তামান্নাকে আটক করা হয়েছে।

স্বাআলো/এসএ