বিএসএফের নির্যাতনে বাংলাদেশি যুবকের মৃত্যু

জেলা প্রতিনিধি, লালমনিরহাট: লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার দুর্গাপুর সীমান্ত দিয়ে নানার বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) নির্যাতনে দেলোয়ার হোসেন (২৮) নামে এক বাংলাদেশি যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভারতীয় হাসপাতালে দেলোয়ারের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লালমনিরহাট ১৫ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল এসএম তৌহিদুল আলম।

আরো পড়ুন>>>  বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের খেসারত দিচ্ছে ভারত

তিনি বলেন, গত মঙ্গলবার ভারতের কোচবিহারের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দেলোয়ারের মৃত্যু হয়। মৃত দেলোয়ার হোসেন আদিতমারী উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামের খয়বর আলীর ছেলে।

দেলোয়ারের চাচাতো ভাই সাদেকুল ইসলাম বলেন, ২০ জানুয়ারি রাতে দুর্গাপুর সীমান্ত দিয়ে ভারতের দিনহাট এলাকায় নানার বাড়ি যাওয়ার সময় বিএসএফের হাতে আটক হয় দেলোয়ার। ওই সময় তাকে নির্যাতন করে বিএসএফ। পরে তাকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কোচবিহারের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দেলোয়ারের মৃত্যু হয়। তার মরদেহ দেশে আনার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি আমরা।

দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সালেকুজ্জামান প্রামাণিক বলেন, ২০ জানুয়ারি রাতে দুর্গাপুর সীমান্তের ৯২৪ নম্বর পিলার এলাকা দিয়ে ভারতে যায় দেলোয়ার হোসেন। এ সময় তাকে আটক করে নির্যাতনের পর ভারতীয় পুলিশের কাছে সোপর্দ করে বিএসএফ। ভারতের কুচবিহার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার তার মৃত্যু হয়।

আদিতমারী থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, মৃতের পরিবার বুধবার থানায় জিডি করেছেন। তার মৃত্যুর খবর শুনেছি। তবে মরদেহ হস্তান্তরের কোনো চিঠি পাওয়া যায়নি।

বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল এসএম তৌহিদুল আলম বলেন, টেলিফোনে দেলোয়ারের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে বিএসএফ। তার মরদেহ হস্তান্তরের পর নির্যাতনের চিহ্ন পাওয়া গেলে প্রতিবাদ জানাবে বিজিবি।

স্বাআলো/এসএ