চাঁদা না দেয়ায় শিক্ষকের ঘরে আগুন

জেলা প্রতিনিধি, বান্দরবান: বান্দরবানের লামা উপজেলার হাফেজপাড়ায় স্কুলশিক্ষক খালেকুজ্জামানের বসতবাড়ির একটি ঘর পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। অজ্ঞাত দুর্বৃত্তদের লাগানো আগুনে বসতঘরে থাকা ৫ মেট্রিক টন ধান, ঘরের মূল্যবান জিনিসপত্রের ক্ষতি হয়েছে।

রবিবার ভোর রাতে এ ঘটনা ঘটে।

গত ১৫ দিনে মাস্টার পাড়া, হাফেজপাড়া ও বৈদ্য ভিটায় ১২টির অধিক বাড়ি ঘর দুর্বৃত্তরা আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছে বলে স্থানীয় ইউপি মেম্বার আবু তাহের জানিয়েছেন।

খালেকুজ্জামান জানান, গত ৩ ফেব্রুয়ারি ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে তার কাছে একটি উড়োচিঠি আসে। উড়োচিঠিতে থাকা মোবাইল নাম্বারে কল করলে কেউ রিসিভ করেনি। বিষয়টি লামা থানার পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

আরো পড়ুন>>>  রাজধানী বনানীর আগুন নিভলো সকালে

মাস্টার পাড়া, হাফেজ পাড়া ও বৈদ্য ভিটার শাহ আলম, সুষম মার্মা, চনুমং মার্মা, মংক্যচিং মার্মা, হ্লামাপ্রু মার্মা জানান, গত ১৫ দিন ধরে তাদের বসতবাড়িতে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে।

চনুমং মার্মা জানান, তার কাছে ১ লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে একটি উড়োচিঠি আসে। সে চিঠিতে উল্লেখিত মোবাইল নাম্বারে কল দিলে কেউ রিসিভ করেনি বলে জানান।

স্থানীয় ইউপি মেম্বার আবু তাহের ও  শফি জানান, দুর্বৃত্তদের অব্যাহত নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডের কারণে স্থানীয় জনসাধারণের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

রূপসী পাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ছাচিং প্রু মার্মা জানান, অত্র ইউনিয়নের মাস্টার পাড়ার শৈ প্রু মার্মার ছেলে চিং চিং মার্মা (২৫) লামার বাহিরে দুই সহযোগী নিয়ে রূপসী পাড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় চুরি ও অপরাধমূলক কাজ করে যাচ্ছে। উড়ো চিঠি চিং চিং মার্মায় দিয়েছে।

লামা থানা ওসি অপ্পেলা রাজু নাহা জানান, চাঁদা দাবি ও আগুন লাগিয়ে বাড়ি ঘর পুড়িয়ে দেয়া অপরাধীদের যেকোনো মূল্যে গ্রেফতার করা হবে।

স্বাআলো/এসএ