প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে নতুন স্কুলভবন পাচ্ছে লামিয়া

জেলা প্রতিনিধি, পিরোজপুর: পিরোজপুর সদরের পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী লামিয়ার আশা পূর্ণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অবশেষে নতুন স্কুল ভবন ও শ্রেণীকক্ষ পেতে যাচ্ছে শিশু লামিয়া। গত ২০১৯ সালের জুনে প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিদ্যালয়ের নতুন ভবন ও ঘূর্ণিঝড়ের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর বরাবর চিঠি লেখে শিশু লামিয়া।

তারই পরিপ্রেক্ষিতে এ বছর ২৭ জানুয়ারি পিরোজপুরের দক্ষিণ গাজীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্য নতুন ভবন নির্মাণের অনুমোদন দেয় মন্ত্রণালয়। শিগগিরই শুরু হতে যাচ্ছে নতুন স্কুল ভবনের নির্মাণ কাজ।

চিঠিতে লামিয়া লিখেছিলো যে, তার স্কুল ভবনটি নাজুক এবং ঝুঁকিপূর্ণ। প্রধানমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে সে উল্লেখ করেছিলো বিদ্যালয়ের ১২৮ শিক্ষার্থী প্রতিদিন ঝুঁকিপূর্ণ শ্রেণিকক্ষে ক্লাসে করছে।

শিশু লামিয়া আরো বলে, ক্ষতিগ্রস্ত দেয়াল এবং ছাদ থেকে ধুলাবালি পড়ার কারণে তার সহপাঠিদের প্রতিদিন শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কার করতে হচ্ছে।

পরে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় বিষয়টি খতিয়ে দেখে যে আসলেই বিদ্যালয় ভবনটি জরাজীর্ণ। ভবনটি যে কোন সময় ভেঙে পড়তে পারে। মেরামত করার জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ দিয়ে তৈরি অস্থায়ী টিনের ছাদযুক্ত কক্ষে হচ্ছিল।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম-আল-হোসেন বলেন, মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের উচিত ছিল শিশুটি প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লেখার আগে বিষয়টি সম্পর্কে আমাদের জানানো।

তিনি আরো বলেন, মন্ত্রণালয় সারাদেশে ৬০০,০০০ নতুন শ্রেণিকক্ষ তৈরির পরিকল্পনা করছে।

এছাড়া ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের কোনও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিদ্যুতের ঘাটতি থাকবে না এবং ২০২৪ সালের মধ্যে শ্রেণিকক্ষ এবং শিক্ষকদের কোনও সংকট থাকবে না।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব নুরুন্নবী বলেছেন, লামিয়ার বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গনে একটি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় তৈরি করা দরকার ছিল, যার দক্ষিণ ও পূর্বাঞ্চলে নদী রয়েছে।

স্বাআলো/এসএ