চলছে সৌম্যের গায়ে হলুদ, মধ্যরাতে বিয়ে

ডেস্ক রিপোর্ট: পারিবারিক আয়োজনে বিয়ে হলেও সৌম্য সরকার ও প্রিয়ন্তী দেবনাথ পূজার জানাশোনা অনেক আগে থেকেই। কনে প্রিয়ন্তী দেবনাথ পূজা খুলনার টুটপাড়ার হাজীবাগ এলাকার। বর্তমানে রাজধানীর গ্রীনরোডের স্থায়ী বাসিন্দা। সৌম্য সরকার সাতক্ষীরা শহরের মধ্যকাটিয়া এলাকার বাসিন্দা।

বুধবার সকাল থেকেই সাতক্ষীরা শহরের মধ্যকাটিয়ায় সৌম্য সরকারের বাড়িতে চলছে গায়ে হলুদের প্রস্তুতি। দুপুর ১২টায় শুরু হয় গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান। এতে হাজির হয়েছেন আত্মীয়-স্বজন,শুভাকাঙ্ক্ষীসহ সৌম্যের বন্ধুরা। মধ্যরাতে খুলনা ক্লাব মিলনায়তনে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে।

সৌম্য সরকারের বিয়ে নিয়ে শুরু থেকেই কঠোর গোপনীয়তা অবলম্বন করছে তার পরিবার। তবে গোপনীয়তার মাঝেও শুভাকাঙ্ক্ষীদের মাধ্যমে সৌম্য সরকারের আশীর্বাদের কয়েকটি ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। সেখানেই শুরু হয় বিতর্কের। অবৈধভাবে হরিণের চামড়া বাসায় রেখে সেটি আসন হিসেবে ব্যবহার করা হয় সৌম্যের আশীর্বাদে। যদিও এটিকে পারিবারিক ঐতিহ্য হিসেবে উল্লেখ করেছেন সৌম্য সরকারের বাবা সাবেক জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কিশোরী মোহন সরকার।

তবে বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী ক্রাইম কন্ট্রোল ইউনিটের পরিচালক এসএম জহির উদ্দিন আকন জানান,

যদি তারা চামড়া রাখার পক্ষে কোনো লাইন্সেন্স দেখাতে পারেন তবে সেটা বৈধ নয়তো অবৈধ। অবৈধ হলে শাস্তি পেতে হবে।

এদিকে, বিয়ের দিনও কঠোর গোপনীয়তা অবলম্বন করছেন সৌম্য সরকারের পরিবার। সৌম্যের বাবা বলেন, সৌম্যের বিয়ের বিষয়ে কথা বলতে ওপর মহলের নিষেধ রয়েছে।

বিকেল ৪টার দিকে বরযাত্রীর বহর নিয়ে খুলনার উদ্দেশ্য রওনা হবেন সৌম্য সরকার। ২৮ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) রাতে সাতক্ষীরা শহরের মোজাফফর গার্ডেনে (মন্টুমিয়ার বাগান) আয়োজন করা হয়েছে বৌভাতের।

স্বাআলো/এসএ