শাবনূরের সংসার ভাঙা কে এই আয়েশা?

ডেস্ক রিপোর্ট: স্বামী অনিক মাহমুদ হৃদয়কে ডিভোর্সের নোটিশ পাঠিয়েছেন বাংলা চলচ্চিত্রের একসময়কার তুমুল জনপ্রিয় নায়িকা শাবনূর। কিন্তু এই নোটিশের আগেই নিজের স্ত্রী হিসেবে শাবনূরকে অস্বীকার করেছেন অনিক। তার পাসপোর্ট অন্তত তাই বলেছে।

সাত বছর আগে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন অনিক ও শাবনূর। আর শাবনূর ডিভোর্সের নোটিশ পাঠিয়েছেন গত ২৬ জানুয়ারি। তাদের ডিভোর্স চূড়ান্ত হতে লাগবে আরো তিন মাস। সে হিসেবে এখনও অনিকের স্ত্রী হিসেবে শাবনূরের নামই থাকার কথা। কিন্তু অনিকের পাসপোর্ট বলছে ভিন্ন কথা। তার পাসপোর্টে স্ত্রীর পরিচয়ের জায়গায় রয়েছে আয়েশা আক্তারের নাম।

বছর তিনেক আগেও মিডিয়ায় শাবনূর-অনিকের ছাড়াছাড়ির গুঞ্জন ওঠে। সে সময় অনিক মিডিয়াকে বলেছিলেন এমন কিছু হয়নি।

আরো পড়ুন>>>স্বামীকে তালাক দেয়ার আসল তথ্য ফাঁস করলেন শাবনূর

গত ২৬ জানুয়ারি স্বামী অনিককে তালাক দিয়েছেন শারমীন নাহিদ নূপুর ওরফে শাবনূর। নিজের সই করা নোটিশটি অ্যাডভোকেট কাওসার আহমেদের মাধ্যমে স্বামীকে পাঠিয়েছেন তিনি। নোটিশে অনিকের সঙ্গে বনিবনা না হওয়াকে কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

২০১১ সালের ৬ ডিসেম্বর অনিক মাহমুদ হৃদয়ের সঙ্গে আংটি বদল করেন শাবনূর। এরপর ২০১২ সালের ২৮ ডিসেম্বর বিয়ে করেন তারা। ২০১৩ সালের ২৯ ডিসেম্বর আইজান নিহান নামে এক পুত্রসন্তানের মা হন শাবনূর। পুত্রকে নিয়ে তিনি এখন অস্ট্রেলিয়ায় বসবাস করছেন।

স্বাআলো/ডিএম