পিরোজপুরের বিচারককে বদলির আসল কারণ জানালেন আইনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: আইনজীবীদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার ও উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পিরোজপুরের জেলা জজ  আবদুল মান্নানকে তাৎক্ষণিক বদলি করা হয়েছে, এমনকি সাবেক সংসদ এ কে এম এ আউয়াল ও তার স্ত্রীকে জামিন দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক।

আজ বুধবার সচিবালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী এ কথা জানান।

আরো পড়ুন>>>  পাপিয়ার সঙ্গে জড়িত সবাই আইনের আওতায় আসবে

মঙ্গলবার  দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা তিন মামলায় পিরোজপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম এ আউয়াল ও তার স্ত্রী লায়লা পারভীনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক আবদুল মান্নান। ওই আদেশের ঘণ্টাখানেক পর বিচারক জেলা জজ আবদুল মান্নানকে তাৎক্ষণিক বদলি (স্ট্যান্ড রিলিজ) করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, পিরোজপুরের জেলা জজের কাছে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও তার স্ত্রী জামিন চাইতে গিয়েছিলেন। জামিন চাওয়ার সময় তার যে আইনজীবী এবং বারের সকল আইনজীবীর সঙ্গে, আমরা তথ্যাদি পেয়েছি গতকাল থেকে। সেজন্যই আজকে আপনাদের সামনে সেগুলো উপস্থাপন করছি। জেলা ও দায়রা জজ অত্যন্ত অশালীন ও রূঢ় ব্যবহার করেছেন। সেই উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এমন একটা অবস্থা দাঁড়ায় যেখানে বারের সকলে আদালত বর্জন করার সিদ্ধান্ত নেন।

তিনি আরো বলেন, উদ্ভূত পরিস্থিতির অবস্থায় তখন এসব গন্ডগোল চলছিল যখন রাস্তায় লোকজন বেরিয়ে গিয়েছিল, সেটাকে কন্ট্রোল (নিয়ন্ত্রণ) করার জন্য আইন মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবে তাকে (বিচারককে) ওখান থেকে স্ট্যান্ড রিলিজ (বদলি) করার আদেশ দেয়া হয়।

স্বাআলো/এসএ