‘প্রেমিকার শোকে’ নিজের গলায় গুলি চালালেন পুলিশ

বরিশাল ব্যুরো: অন্য পুরুষের সঙ্গে প্রেমিকার বিয়ে হওয়ায় সুইসাইড নোট লিখে নিজের গলায় গুলি চালিয়ে হৃদয় চন্দ্র দাস (২২) নামে এক পুলিশ কনস্টেবল আত্মহত্যা করেছেন।

শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে বরিশাল জেলা পুলিশ লাইন্সের নবনির্মিত ছয়তলা ব্যারাক হাউসের ছাদে তার মরদেহ পাওয়া যায়। আত্মহত্যার আগে সুইসাইড নোট লিখে গেছেন ওই পুলিশ সদস্য।

আত্মহত্যাকারী হৃদয় ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার কুঞ্জেরহাট চকদুশ এলাকার সুকন্ঠ চন্দ্র সাহার ছেলে। বরিশাল জেলা পুলিশের কনস্টেবল হিসেবে এক বছর তিন মাস আগে নিয়োগপ্রাপ্ত হন তিনি।

আরো পড়ুন>>>  পুড়ে অঙ্গার ছয় বন্ধু, চেনা যাচ্ছে না লাশ

বরিশাল জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার অতিরিক্ত সুপার নাইমুল হক বলেন, বৃহস্পতিবার রাত ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত হৃদয় ব্যারাক হাউসের সামনে ডিউটিরত ছিল।

শুক্রবার দুপুরে ব্যারাক হাউসের ছাদে তার মরদেহ পাওয়া যায়। আমাদের ধারণা রাতের যেকোনো সময় নিজের রাইফেল দিয়ে সবার অগোচরে সাততলা ভবনের ছাদে গিয়ে গলায় গুলি করে আত্মহত্যা করেছে হৃদয়। শুক্রবার দুপুরে ব্যারাকের এক পুলিশ সদস্য ছাদে গেলে হৃদয়ের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখেন।

অতিরিক্ত সুপার নাইমুল হক বলেন, হৃদয়ের পকেটে দুটি চিঠি পাওয়া গেছে। বাবা ও ছোট ভাইয়ের কাছে লেখা চিঠি দুটিতে তিনি তার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয় বলে উল্লেখ করেছেন। এছাড়া তার পকেটে থাকা মানিব্যাগে একটি মেয়ের ছবি পাওয়া গেছে। বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী ধারণা করা হচ্ছে, প্রেমের সূত্র ধরেই এ আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। তারপরও বিষয়টি আমরা তদন্ত করে দেখছি। তার অস্ত্রসহ ছাদে যাওয়ার বিষয়ে যদি কোনো পুলিশ সদস্যের দায়িত্বে অবহেলা থাকে তাহলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

হৃদয় চন্দ্র দাসের একাধিক সহকর্মী জানান, হৃদয়ের সঙ্গে একটি মেয়ের তিন থেকে চার বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। সম্প্রতি ওই মেয়ের অভিভাবকরা তাকে অন্যত্র বিয়ে দেন। এতে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন হৃদয়। হৃদয় ওই মেয়েটিকে খুব ভালোবাসতেন। প্রেমিকাকে কাছে না পাওয়ার বেদনায় আত্মহত্যা করেছেন হৃদয়।

স্বাআলো/এসএ