ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উদযাপিত হয়েছে চুয়েটে

চট্টগ্রাম ব্যুরো: নানা আয়োজনে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উদযাপিত হয়েছে।

এ উপলক্ষ্যে শনিবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে উপাচার্য অধ্যাপক ড.  রফিকুল আলমের নেতৃত্বে একটি র‌্যালি বের করা হয়।

র‌্যালিটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে স্বাধীনতা চত্বর সংলগ্ন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল প্রাঙ্গণে এসে শেষ হয়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান উপাচার্য অধ্যাপক ড. রফিকুল আলম। এ সময় চুয়েট বঙ্গবন্ধু পরিষদসহ অন্যান্য সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রশাসনিক ভবনের কাউন্সিল কক্ষে ৭ মার্চ উপলক্ষ্যে বিশেষ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

চুয়েটের স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মইনুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক ড. রফিকুল আলম।

বিশেষ অতিথি ছিলেন যন্ত্রকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দীন আহম্মেদ, ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক।

বক্তব্য দেন পুরকৌশল বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. সুদীপ কুমার পাল, শেখ রাসেল হলের প্রভোস্ট ড. মোহাম্মদ কামরুল হাছান, চুয়েট শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. সানাউল রাব্বী, কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি প্রকৌশলী সৈয়দ মোহাম্মদ ইকরাম, স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি জামাল উদ্দীন প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. রফিকুল আলম বলেন, ৭ মার্চের ভাষণ আমাদেরকে স্বাধীনতার পথ দেখিয়েছে। এ পথে হেঁটেই আমরা গৌরবময় স্বাধীনতা লাভ করেছি।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেত্বত্বে আমরা স্বাধীনতা লাভ করেছি। এখন বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সুখী-সমৃদ্ধ উন্নত দেশ হিসেবে আত্মপ্রকাশের চলমান অগ্রযাত্রায় আমাদেরকে আত্মনিয়োগ করতে হবে।

স্বাআলো/টিআই