ইনজেকশন দেয়ার পরই রোগীর মৃত্যু

জেলা প্রতিনিধি, শরীয়তপুর: শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার একটি হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে। উপজেলার ঘড়িসার আধুনিক হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে শুক্রবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় বিক্ষোভ করে হাসপাতালে ভাঙচুর চালিয়েছে মৃতের স্বজন ও এলাকাবাসী। মৃত আকলিমা বেগম (৪৩) উপজেলার ডিঙ্গামানিক ইউনিয়নের সালধ গ্রামের ইয়ার বক্স ব্যাপারীর স্ত্রী।

আকলিমার মেয়ে আশামনি জানান, তার মা বেশ কিছুদিন ধরে নাকের পলিপাস জনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। গত মাসের শেষের দিকে ঘড়িসার আধুনিক হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের নাক, কান ও গলা রোগ বিশেষজ্ঞ মিজানুর রহমানকে দেখান। সবকিছু দেখে আকলিমাকে দুই সম্পাহ পর আসতে বলেন চিকিৎসক।

আরো পড়ূন>>> হাসপাতাল থেকে পালিয়েছে করোনাভাইরাস রোগী

সে অনুযায়ী শুক্রবার সন্ধ্যায় তাকে ক্লিনিকে নেয়া হয়। ক্লিনিকের চিকিৎসক মিজানুর রহমান পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে অপারেশনের জন্য অবশের একটি ইনজেকশন দেন। কিছুক্ষণের মধ্যে তার মায়ের অবস্থার অবনতি হয়। এ সময় মাকে দেখতে চাইলে দেখতে দেননি চিকিৎসক। আড়াই ঘণ্টা পর চিকিৎসক বলেন আকলিমার অবস্থা ভালো না, তাকে ঢাকা নিতে হবে। এরপরই ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ তড়িঘড়ি করে অ্যাম্বুলেন্স ডেকে আকলিমাকে উঠিয়ে দেয়। কিন্তু অ্যাম্বুলেন্সে তোলার আগেই তার মায়ের মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে জানতে আধুনিক হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের নাক, কান ও গলা রোগ বিশেষজ্ঞ মিজানুর রহমানের মোবাইল নম্বরে একাধিকবার কল দিয়েও পাওয়া যায়নি।

হাসপাতালের পরিচালক সেকেন্দার আলী হাওলাদার বলেন, রোগীর নাকে পলিপাস ছিল। সন্ধ্যায় তাকে অবশের ইনজেকশন দেন চিকিৎসক। অপারেশন শেষে জ্ঞান ফিরেছে তার। এরপরই তার মৃত্যু হয়।

শরীয়তপুরের এসপি এসএম আশরাফুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেব আমরা। তবে রোগীর পরিবারের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

স্বাআলো/টিআই