বাগেরহাটে শিশুসহ অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী নিয়ে নৌকাডুবি

জেলা প্রতিনিধি, বাগেরহাট: বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার সদর রায়েন্দা খালের ব্রিজটি পারাপারে অযোগ্য ঘোষণার একদিন পরই ওই খালে ইঞ্জিন চালিত নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার সকালে এই নৌকাডুবির ঘটনায় অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছে শিশুসহ অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী। এরা সাতরিয়ে কিনারে উঠতে সক্ষম হলেও অসুস্থ হয়ে পড়েছে কয়েকজন শিক্ষার্থী।

স্থানীয় সেলিম হোসেন, ওয়াদুদ আকন ও সুলতান আহমেদ জানান, ব্রিজটি পারাপারে অযোগ্য হওয়ায় সকালে শিক্ষার্থীরা নৌকায় খাল পার হয়ে স্কুলে যাওয়ার সময় ধারণ ক্ষমতার চেয়ে বেশি হওয়ায় নৌকাটি ডুবে যায়। তাৎক্ষনিকভাবে এলাকাবাসী নেমে শিশু ও বৃদ্ধদের উদ্ধার করে। শিক্ষার্থীরা সাতরিয়ে কিনারে ওঠে। তাদের বই খাতা ভিজে যায়।

শরণখোলা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ নুরুল আলম ফকির বলেন, প্রতিদিন শতশত শিক্ষার্থী ও জনসাধারণ এই সেতু পার হয়ে তাদের প্রয়োজনীয় যোগাযোগ রক্ষা করত। সেতুটি বন্ধ হওয়ায় নৌকাই একমাত্র ভরসা। নৌকায় পারাপার নিয়মিত হলে সকালের মত যেকোন সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। প্রাণহানীও হতে পারে। তাই অতিদ্রুত এই জায়গায় একটি বিকল্প সেতুর ব্যবস্থা করে জনভোগান্তি কমানোর দাবি জানান তিনি।

শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন বলেন, নৌকাডুবির খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে যাই। নৌকাডুবিতে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এ ধরণের সমস্যা এড়াতে উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে এক সপ্তাহের মধ্যে  অযোগ্য সেতুর স্থানে বিকল্প একটি সেতু তৈরি করে দেয়া হবে। এ জন্য ইতোমধ্যে উপজেলা পরিষদ থেকে এক লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

স্বাআলো/এসএ/কে