কুমিরের চোখে ঘুষি মেরে বেঁচে ফিরল রাকিব

জেলা প্রতিনিধি, বাগেরহাট: বাগেরহাটের খানজাহান আলী দিঘিতে গোসল করতে গিয়ে কুমিরের সাথে লড়াই করে কুমিরের চোখে ঘুষি মেরে প্রাণে রক্ষা পেয়েছে রাকিব হোসেন নামের এক কিশোর। তবে কুমিরের কামড়ে আহত রাকিবকে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্ত্তি করা হয়েছে।

আহত স্কুল ছাত্র রাকিব বলে, সোমবার দুপুরে স্কুল থেকে বাড়িতে এসে দিঘির ঘাটে গোসল করতে যাই। সিড়ির ঘাটে খানিক নেমে হাত-পা ও শরীরে পানি দিচ্ছিলাম। হঠাৎ একটি কুমির এসে আমার ডান পা কামড়ে ধরে গভীর পানিতে নিয়ে যাওয়ার জন্য চেষ্টা করে। আমি জীবন বাঁচাতে কুমিরের চোখ, নাখসহ মাথায় ঘুষি মারতে শুরু করি। এক পর্যায়ে কুমিরটি আমার পা ছেড়ে দেয়। আমি দৌড়ে ওপরে উঠে আসি। কুমিরের কামড়ে ক্ষত পা নিয়ে বিকেলে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি হই।
আহত রাকিব বাগেরহাটের খানজাহান আলী মাজার সংলগ্ন রণবিজয়পুর গ্রামের জাকির হোসেনের ছেলে। সে কে আলী দরগা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্র।

মাজারের প্রবীণ খাদেম শের আল ফকির বলেন, এখন কুমিরের ডিম পাড়ার সময়। এ সময় কুমির একটু হিংস্র হয়ে যায়। তাই হয়তো কুমিরটি রাকিবকে আক্রমণ করেছে।

বাগেরহাট সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ডা. ফারহান আতিক বলেন, আমরা তাকে পর্যাপ্ত চিকিৎসা দিয়েছি। সে এখন শংঙ্কামুক্ত।

স্বাআলো/এসএ/কে