যে কারণে মাদারীপুরের শিবচরে লকডাউন ঘোষণা

জেলা প্রতিনিধি, মাদারীপুর: বৃহস্পতিবার রাতে মাদারীপুরের শিবচরে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় এই লকডাউন ঘোষণা করে উপজেলা প্রশাসন। এর আগে ফরিদপুর, মাদারীপুর ও শিবচর উপজেলাকে সর্বাধিক ঝুঁকিপূর্ণ বলে জানিয়েছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, উপজেলাটির প্রায় পাঁচ হাজার মানুষ কর্মসংস্থানের জন্য প্রবাসে থাকেন। যাদের মধ্যে ইতালিসহ বিভিন্ন দেশ থেকে সম্প্রতি শিবচরে ফেরত এসেছেন ৬০০ জন। একারণে এই উপজেলাকে চরম ঝুঁকিপূর্ণ বলে চিহ্নিত করা হয়েছে।

মাদারীপুর সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, মাদারীপুরে ২১২ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি দুজনকে ঢাকায় আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

এমন অবস্থায় জনসমাগম এড়াতে প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাচ্ছে না জনসাধারণ। উপজেলার প্রায় বেশির ভাগ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। চারদিকে একটা থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

করোনা প্রতিরোধে প্রবাসীদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কঠোর নির্দেশনা দিয়েছে মাদারীপুরের শিবচরের স্থানীয় প্রশাসন। না মানলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানিয়েছে প্রশাসন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টিতে যেহেতু শিবচর করোনা ঝুঁকিতে রয়েছে তাই প্রবাসীদের নিজ বাড়িতে অবস্থান করার অনুরোধ জানানো হয়েছে। এছাড়া কেউ যদি হোম কোয়ারেন্টাইন না মানে তাহলে শিবচর নন্দকুমার ইনস্টিটিউশনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন হিসেবে ব্যবহারের সিদ্ধান্ত হয়েছে। তাকে সেখানে রাখা হবে বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে করোনা প্রতিরোধে জরুরি সভার আয়োজন করে শিবচর উপজেলা প্রশাসন। সেখানেই করোনাভাইরাসের কারণে উপজেলার ২টি ইউনিয়ন ও পৌরসভার ১টি ওয়ার্ড ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে বলে জানানো হয়।

স্বাআলো/ডিএম