রোগী না দেখেই প্রেসক্রিপশন, ইনজেকশন দেয়ামাত্রই মৃত্যু

জেলা প্রতিনিধি, মাদারীপুর: ‘পানি খেয়ে বমি করলেই রোগী সুস্থ্য হয়ে যাবে, চিন্তার কিছু নেই।’ এমন আশ্বাস দিয়ে রোগীর কাছেই যাননি ডাক্তার। নিজের টেবিলে বসে আন্দাজেই প্রেসক্রিপশন লিখেছেন তিনি। ওই প্রেসক্রিপশন দেখে ইনজেকশন দিয়েছেন আরেক ডাক্তার। এরপরই মৃত্যু হয় রোগীর।

শুক্রবার সকালে মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ইয়াসমিন ওই উপজেলার আলমদস্তার গ্রামের ইলিয়াস শেখের মেয়ে। তিনি ঘুমের ওষুধ খেয়ে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।

নিহতের মা লিপি বেগম বলেন, বৃহস্পতিবার বিকেলে আমার মেয়ে ঘুমের ওষুধ খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। হাসপাতালে নেয়ার পর ডা. শিউলী রানী দাস তাকে না দেখেই প্রেসক্রিপশন লেখেন। তখন তিনি বলেন, চিন্তার কিছু নেই, পানি খেয়ে বমি করলেই ঠিক হয়ে যাবে। শুক্রবার সকালে অবস্থার অবনতি হলে ডা. মিঠুন রায় এসে প্রেসক্রিপশন দেখে পরপর দুটি ইনজেকশন পুশ করেন। এরপরই খিঁচুনি দিয়ে আমার মেয়ে নীরব হয়ে যায়।

অভিযুক্ত ডা. শিউলী রানী দাসের সঙ্গে যোগাযোগ করা চেষ্টা করলে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে হাসপাতালে ছুটে আসেন ইউএনও সোহানা নাসরিন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. প্রদীপ চন্দ্র মণ্ডল এবং রাজৈর থানার ওসি খন্দকার শওকত জাহান। তারা নিহতের পরিবারকে সুষ্ঠ তদন্ত ও বিচারের আশ্বাস দেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জানান, অবহেলা করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। তদন্ত করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্বাআলো/এসএ