যে কারণে খালেদাকে মুক্তি দিলেন শেখ হাসিনা

ডেস্ক রিপোর্ট: বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে রাজনৈতিক উদারতা, মানবিকতা এবং রাজনৈতিক দূরদৃষ্টির এক অনন্য নজির স্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শেষ পর্যন্ত তিনি একজন মানবিক ব্যক্তি এটা এই মুক্তির মাধ্যমে প্রমাণ করলেন প্রধানমন্ত্রী।

জানা গেছে যে, শেখ হাসিনার কাছে যখন বেগম জিয়ার পরিবারের সদস্যরা যান, তখন তিনি বলেন যে, আমি কারও ওপর কখনও অন্যায়-অত্যাচার করিনি, করবোও না। বেগম জিয়ার যদি চিকিৎসার দরকার হয়, তবে সরকার তাকে অবশ্যই মুক্তি দেবে।

তবে রাজনৈতিক মহল মনে করছে যে, সরকার খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়ার পেছনে ৫টি কারণ কাজ করেছে।

১. রাজনৈতিক কৌশল: এই মুক্তির মাধ্যমে রাজনৈতিকভাবে আওয়ামী লীগ এবং শেখ হাসিনা অনেক দূর এগিয়ে গেলেন। শেখ হাসিনা প্রমাণ করলেন যে, তিনি দেশের নেতা এবং বিএনপির দাবি-দাওয়া, আন্দোলন নয়, বরং খালেদা জিয়া সরকারের কাছে মানবিক কারণে মুক্তি ভিক্ষা চেয়ে নিয়েছে। আইনি লড়াই বা আন্দোলনের মাধ্যমে বিএনপি বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে পারেনি, সেটাও প্রমাণ হয়ে গেছে। এর ফলে আওয়ামী লীগ রাজনৈতিকভাবে বিএনপিকে পরাস্ত করলো। একই সঙ্গে আরেকটি বিষয় স্পষ্ট হলো যে, খালেদা জিয়া এতদিন আপসহীন নেত্রী বলে নিজেকে দাবি করতেন, সেই আপসহীন নেত্রী তার রাজনৈতিক জীবনের সবচেয়ে বড় আপসটি করলেন। কারণ তিনি অনুকম্পা ভিক্ষা করে মুক্তি নিয়েছেন এটাই হলো রাজনৈতিক কৌশলে আওয়ামী লীগের সবচেয়ে বড় বিজয়।

২. খালেদার অসুস্থতা: খালেদার মুক্তির দ্বিতীয় কারণ হলো তার অসুস্থতা। তিনি সত্যি অসুস্থ। এই অসুস্থতার দায় আওয়ামী লীগ বা সরকার নিতে চায়নি বলেই ছয় মাসের জন্য তার দণ্ড স্থগিত করা হয়েছে।

৩. করোনার প্রকোপ: বেগম জিয়ার মুক্তির তৃতীয় কারণ হলো করোনাভাইরাসের প্রকোপ। এই ভাইরাস বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। অনেকেই মনে করছে যে এই ভাইরাস অনেকদূর পর্যন্ত যাবে। যদি খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুতে (বিএসএমএমইউ) থাকেন এবং তার করোনার সংক্রমণ হয়, তাহলে একটা নাজুক পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে। এর দায়- দায়িত্ব সরকারের উপর পড়তে পারে। এ কারণেই করোনার প্রকোপ যেন খালেদার স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব না পড়ে সেজন্য সরকার তাকে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

৪. শেখ হাসিনার উদারতা: শেখ হাসিনা একজন উদার, মানবিক এবং দরদী রাজনীতিবিদ। যিনি তাকে হত্যার করতে নানা কৌশল নিয়েছিল এবং গ্রেনেড হামলাও চালানো হয়েছিল, যিনি তার পিতার মৃত্যুদিনে বীভৎস উৎসব করেন, তার প্রতিও ক্ষমা দেখিয়ে শেখ হাসিনা এক উদার মানসিকতার পরিচয় দিলেন। শেখ হাসিনার এই উদারতার জন্যই শেষ পর্যন্ত খালেদা জিয়ার মুক্তি সম্ভব হয়েছে।

৫. বেগম জিয়ার পরিবারের চেষ্টা: শেষ পর্যন্ত বেগম জিয়ার মুক্তির সবচেয়ে বড় কারণ ছিল তার পরিবারের চেষ্টা। তার পরিবার রাজনীতিবিদদের কাছ থেকে খালেদার মুক্তির বিষয়টি নিজেদের মধ্যে নিয়ে নেন। খালেদার মুক্তির জন্য রাজনৈতিক পথে না গিয়ে দেন দরবার এবং অনুনয়-বিনয়, ক্ষমা প্রার্থনার পথ অবলম্বন করে। বেগম জিয়ার পরিবারের এই চেষ্টা, বিশেষ করে তার ছোট ভাই এবং বোনের চেষ্টাই তার মুক্তির একটি বড় কারণ বলে মনে করছে রাজনীতি বিশ্লেষকরা।

স্বাআলো/এসএ