চীনে ২ কোটি ১৫ লাখ মানুষ নিখোঁজ!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: করোনাভাইরাস বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়লেও এর প্রকোপ কমতে শুরু করেছে চীনে। তবে চীনের একটি আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সাইট দাবি করেছে, দেশটি করোনা নিয়ে মিথ্যা কথা বলছে।

কারণ হিসেবে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সাইটটি বলছে, ভ্রমণ, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এবং অনলাইনে কেনাকাটার জন্য চীনের নাগরিকদের রাষ্ট্রীয়ভাবে অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করতে হয়। এবার চীনে প্রায় ২ কোটি ১৫ লাখ মানুষ এখনো তাদের মোবাইলে রেজিস্ট্রেশন করেননি। চীনের সরকারের পক্ষ থেকে এখনো এ নিয়ে কিছু বলা হয়নি।

আরো পড়ুন>>>  করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে ডেটল খেয়ে ৫৯ জনের মৃত্যু

ধারণা করা হচ্ছে, এই ২ কোটি ১৫ লাখ মানুষ কোয়ারেন্টাইনে আছেন অথবা মারা গেছেন। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সাইটের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, বিশ্বে করোনার প্রকোপ কম দেখাতে চীনের সেনাবাহিনী হয়তো এই ২ কোটি ১৫ লাখ মানুষকে হত্যা করেও থাকতে পারে।

গত ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের উহানে প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাস এখন বৈশ্বিক মহামারি। বিশ্বের প্রায় ২০০টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এ ভাইরাসটি। এখন পর্যন্ত এই প্রাণঘাতী ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় পৌনে ৫ লাখ এবং মারা গেছেন ২১ হাজার ৩৩৬ জন মানুষ। অপরদিকে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন এক লাখ ১৪ হাজার ৭৭৯ জন।

আরো পড়ুন>>>  করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার নতুন আরেক উপসর্গ

চীনের সরকারের দেয়া তথ্য অনুযায়ী গত ডিসেম্বর থেকে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৮১ হাজার ২৮৫ জন; মারা গেছেন ৩ হাজার ২৮৭ জন।

বাংলাদেশে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে গত ৮ মার্চ। এরপর দিন দিন এ ভাইরাসে সংক্রমণের সংখ্যা বেড়েছে। সর্বশেষ হিসাবে দেশে এখন পর্যন্ত ৪৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন, মারা গেছেন পাঁচজন।

করোনার বিস্তাররোধে দেশের সব স্কুল-কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় এবং সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে সভা-সমাবেশ ও গণজমায়েতের ওপর। চীন ও যুক্তরাজ্য ছাড়া সব দেশ থেকেই যাত্রী আসা বন্ধ হয়ে গেছে।

বন্ধ করে দেয়া হয়েছে দেশের সব বিপণিবিতান। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে আদালতও। এমনকি একাধিক এলাকাকে লকডাউনও ঘোষণা করা হয়েছে। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বাস, ট্রেন, লঞ্চসহ সব ধরনের গণপরিবহন। এ কার্যক্রমে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তার জন্য দেশের সব জেলায় মোতায়েন করা হয়েছে সশস্ত্র বাহিনী।  সূত্র: ডেইলি স্টার (যুক্তরাজ্য)

স্বাআলো/এসএ