গোপালগঞ্জে টহল দিচ্ছে সেনাবাহিনী, হোম কোয়ারেন্টাইনে ৫৩৯ জন

জেলা প্রতিনিধি, গোপালগঞ্জ: গোপালগঞ্জে করোনা রোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা মেনে চলতে সেনাবাহিনীর টহল শুরু হয়েছে। সরকারের দেয়া নির্দেশনা অনুযায়ী স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা করতে ইতোমধ্যে সেনাবাহিনী সব প্রস্তুতি হাতে নিয়েছে।

গোপালগঞ্জের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর মাহবুব আলম জানান, সেনাবাহিনী তিনজন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ৩ ভাগে বিভক্ত হয়ে জেলার ৫ উপজেলায় টহল দিচ্ছে। এছাড়া জনসমাগম থেকে মানুষকে বুঝিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দিচ্ছে।

গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসন করোনা প্রতিরোধে নানা পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে। ইতোমধ্যে তারা ফায়ার সার্ভিসের সহযোগিতায় গোপালগঞ্জের প্রধান বাজার, প্রধান প্রধান সড়ক ও এর আশপাশের ভবনও গাছপালা এবং হাসপাতাল এলাকা ওষুধ দিয়ে ভিজিয়ে দিচ্ছে।

গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানার উদ্যোগে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের ২(দুই) দিনের বেতনের অর্থ দ্বারা ক্রয়কৃত ৫০টি পিপিই ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে এবং ১০টি পিপিই ডায়াবেটিক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ সময়ে তিনি বলেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মানুষ ঘরে থেকে সহায়তা করলে গোপালগঞ্জের মানুষের কোনো প্রকার খাদ্যের অভাবসহ কোনো অভাবে পড়তে হবে না আর কারো খাদ্যের অভাবে থাকলে বা অন্য কোনো সমস্যায় থাকলে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জানানোর আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

গোপালগঞ্জের সিভিল সার্জন ড. নিয়াজ মোহাম্মদ বলেন, জেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনে আছে ৫৩৯ জন। পাঁচটি উপজেলায় স্বাস্থ্য কর্মীরা ডোর স্টেপের মাধ্যমে কারো শরীরে করোনার উপসর্গ আছে কিনা যাচাই-বাছাই করছে জেলা সদরে ৫০ শয্যার একটি এবং পাঁচটি উপজেলায় পাঁচটি করে শয্যা আক্রান্তদের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

স্বাআলো/এসএ